ঈদের আগে ব্যাংক চলবে কীভাবে

জুমবাংলা ডেস্ক : ঈদুল আযহা সামনে রেখে লকডাউন শিথিল করল সরকার। ১৪ জুলাই মধ্যরাত থেকে ২৩ জুলাই সকাল ৬ টা পর্যন্ত গণপরিবহণ, মার্কেট, দোকানপাট, রেস্তোরাঁসহ সবই চালুর ঘোষণা দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে সরকার।

এই সময়ে ব্যাংক-আর্থিক প্রতিষ্ঠানে লেনদেন কীভাবে হবে সেই প্রশ্ন মুখে মুখে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের আগের জারি করা সার্কুলার অনুযায়ী আগামীকাল বুধবার ব্যাংক লেনদেন হবে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত। এছাড়া কোরবানি ঈদের আগে মাত্র তিনদিন ব্যাংক খোলা থাকতে পারে। এ বিষয়ে আগামীকাল বুধবার এ সংক্রান্ত সার্কুলার জারি করবে বাংলাদেশ ব্যাংক।

প্রসঙ্গত, সবশেষ ঘোষণা অনুযায়ী সর্বাত্মক লকডাউনে সপ্তাহে চার দিন ব্যাংকিং কার্যক্রম চালু ছিল। শুক্রবার ও শনিবার ছাড়াও গত রোববার ও আগের রোববার (৪ জুলাই) লকডাউন উপলক্ষে ব্যাংক বন্ধ ছিল। বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তারা বলছেন, যেহেতু লকডাউন শিথিল করা হয়েছে, সেহেতু আগামী রোববার ব্যাংক খোলা থাকার সম্ভাবনা রয়েছে। অর্থাৎ ঈদের আগে বৃহস্পতিবার (১৫ জুলাই ), রোববার (১৮ জুলাই) এবং সোমবার (১৯ জুলাই) ব্যাংক খোলা থাকবে।

এই চারদিন ব্যাংকিং লেনদেনের সময়সীমা বুধবারের সার্কুলারে জানানো হবে।

মঙ্গলবার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে জারি করা আজকের প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, ব্যাংক, বীমা ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে বাংলাদেশ ব্যাংক অথবা আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ প্রয়োজনীয় নির্দেশনা জারি করবে।

আগের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, আগামীকাল বুধবার পর্যন্ত ব্যাংক লেনদেন চলবে সকাল ১০টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত। লেনদেন পরবর্তী কাজ গোছানোর জন্য ব্যাংক খোলা রাখা যাবে বেলা ৪টা পর্যন্ত। আগের চিঠির উল্লেখিত বিভাগ-শাখাগুলো ছাড়াও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা নিশ্চিত করে ব্যাংক তার নিজস্ব বিবেচনায় সীমিত সংখ্যক লোকবলের মাধ্যমে প্রয়োজনীয় সংখ্যক শাখা খোলা রাখতে পারবে।


জুমবাংলানিউজ/এসআর