আন্তর্জাতিক

এক টয়লেট দুই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে, স্কুল যাওয়া বন্ধ ছাত্রীদের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : পুরো স্কুলের জন্য একটি মাত্র শৌচাগার। সেটাও ‌আবার পাশের আরেকটি স্কুলের ছাত্র থেকে শুরু করে স্কুলে ক্যাম্প করা জওয়ান সবাই ব্যবহার করে থাকে। ফলে বাধ্য হয়ে ছাত্রীদেরও একই শৌচাগার ব্যবহার করতে হয়। সে কারণে স্কুলে যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে ভারতের বিহারের রাজধানী পাটনার মইন–উল–হক স্টেডিয়ামের কাছে অবস্থিত বাপু স্মার্ক গার্লস স্কুলের ছাত্রীরা।

প্রতীকী ছবি

১৯৫০ সালে ওই স্কুল স্থাপন করেন ভারতের প্রয়াত সাবেক প্রধানমন্ত্রী লাল বাহাদুর শাস্ত্রীর বোন সুন্দরা দেবী। ২০১২ সালে বাজার সমিতি রোডের বর্তমান ঠিকানায় সেটি স্থানান্তর করা হয়। পাশেই রয়েছে সরকারি বয়েজ (ছেলেদের) স্কুল।

সব মিলিয়ে প্রায় এক হাজার শিক্ষার্থী সেখানে পড়াশোনা করে। এদিকে, স্কুলের প্রিন্সিপাল অবশ্য জানান, স্কুলে দু’‌টি শৌচাগার থাকলেও গত তিন মাস ধরে ওই স্কুলেই আবার সেনাবাহিনীর ক্যাম্প চলছে। তারাই নিচের শৌচাগারটি ব্যবহার করে থাকেন।

আর সেজন্য উপরের শৌচাগারটি ব্যবহার করে ছাত্র–ছাত্রীরা। ফলে ছেলেমেয়ে নির্বিশেষে একই শৌচাগার ব্যবহার করতে বাধ্য হয়। এরই মধ্যে স্কুলের পক্ষ থেকে এবং রাজ্য মহিলা কমিশনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, যত দ্রুত সম্ভব স্কুল থেকে জওয়ানদের ক্যাম্প সরানোর চেষ্টা চলছে। না-হলে ছাত্রীরা ওই শৌচাগারটি ব্যবহার করতে পারছেন না।


জুমবাংলানিউজ/এসওআর




আপনি আরও যা পড়তে পারেন


সর্বশেষ সংবাদ