ইসলাম ধর্ম

এক শহরে একই দিনে উদ্বোধন হলো ৩০টি মসজিদ

ধর্ম ডেস্ক : সংযুক্ত আরব আমিরাত দেশ শারজাহ। চোখধাধানো অপরূপ সৌন্দর্যের শহর শারজাহ। এবার সেই সৌন্দর্যকে বৃদ্ধি করতে একই সাথে নতুন ৩০টি মসজিদ উদ্বোধন করা হয়েছে শহরটিতে। এই দৃষ্টিনন্দন নকশায় স্থাপিত মসজিদগুলো শারজাহ সরকারের ডিপার্টমেন্ট অব ইসলামিক অ্যাফেয়ার্স নির্মাণ করেছে।

খালিজ টাইমস জানিয়েছে, রমজান মাস ও ঈদের নামাজে অতিরিক্ত মুসুল্লিদের চাপ সামাল দিতে এই মসজিদগুলো নির্মিত হয়েছে। রমজান মাসে মসজিদগুলোতে মুসুল্লির সংখ্যা অনেক বেড়ে যায়। অতীতের বছরগুলোতে দেখা গেছে রমজানে মসজিদগুলোতে স্থান সাংকুলান হয় না এই অঞ্চলের মসজিদগুলোতে।

যে কারণে বাইরের রাস্তা, মাঠ, কিংবা পার্কিং এরিয়ায় পাটি বা জায়নামাজ বিছিয়ে নামাজ পড়তে হয় অনেককে। বিশেষ করে রমজানের শুরু থেকে তারাবিহ নামাজ ও শেষ দশ দিনে তাহজ্জুতের নামাজে মুসুল্লিদের স্থান দিতে হিমশিম খেতে হয় মসজিদ কর্তৃপক্ষের। এ কারণেই দ্রুততার সাথে নতুন ৩০টি মসজিদ নির্মাণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

শারজাহ প্রশাসনের ইসলামিক সম্পর্ক বিভাগের কর্মকর্তা আল খায়াল বলেন, নতুন মসজিদগুলোতে নতুন কার্পেট, এয়ার কন্ডিশন ও বড় পার্কিং স্পট রাখা হয়েছে। এই কর্মকর্তা আরো জানিয়েছেন, পবিত্র রমজান উপলক্ষে কর্তৃপক্ষ নতুন করে ৮১ জন ইমাম নিয়োগ দিয়েছে।

এছাড়া শারজাহ’র সবগুলো মসজিদে বিভিন্ন ব্যক্তি ও সংগঠনের উদ্যোগে ব্যাচেলর, শ্রমিক ও দরিদ্রদের জন্য ফ্রি ইফতারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। বিভিন্ন মসজিদে আরবি, ইংরেজী ও উর্দুসহ কয়েকটি ভাষায় ধর্মী আলোচনার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

এবার নরওয়ের অমুসলিমদের মাঝে ১০ হাজার কোরআন বিতরণ করবে মুসলিমরা!
কুরআনের ব্যাপারে মানুষের ভুল ধারণা ভাঙতে অমুসলিমদের মধ্যে কুরআন বিতরণের উদ্যোগ নিয়েছে নরওয়ের মুসলিমরা। দ্য নরওয়েজিয়ান মুসলিম আর্ট অ্যান্ড কালচার অ্যাসোসিয়েশন, দ্য ইসলামিক লিটারেচার অ্যাসোসিয়েশন ও মিনহাজুল কোরআন মস্ক ইন অসলো যৌথভাবে এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করবে।

তারা বলছে, রাজধানী অসলোসহ নরওয়ের বিভিন্ন শহরে স্থানীয় ভাষায় অনূদিত ১০ হাজার কুরআনের কপি বিতরণ করা হবে। খবর সূত্র স্পুটনিক নিউজ-এর। মিনহাজুল কোরআন মসজিদের বোর্ড-মেম্বার হামজা আনসারি বলেন, ‘আমি বিশ্বাস করি, বহু মানুষ কুরআন ও মুসলিম ধর্মবিশ্বাসের ব্যাপারে আগ্রহী।

এই প্রকল্প কোরআনের ব্যাপারে মানুষের ভুল ধারণা ভাঙতে সাহায্য করবে। কেননা কুরআনে শিক্ষা হলো, মানুষকে ভালোবাসো এবং জ্ঞানের কথা বলো।’ সম্প্রতি নরওয়ের ইসলামবিদ্বেষী দল ‘দ্য অর্গানাইজেশন স্টপ ইসলামাইজেশন অব নরওয়ে’ (এসআইএএন)-এর এক সভায় কুরআনে অ’গ্নিসং’যোগের চেষ্টা হয়।

এই ঘটনার পর নরওয়ের মুসলিমরা ইসলাম সম্পর্কে ভুল ধারণা ভাঙতে বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। কোরআন বিতরণের আগে তারা মানুষের মধ্যে ফুল বিতরণ করে এবং পার্কে কোরআন তিলাওয়াত বাজায়। নরওয়ের অনেক অমুসলিমকে এসব উদ্যোগে অংশগ্রহণ করতে দেখা যায়।


জুমবাংলানিউজ/এসআর




আপনি আরও যা পড়তে পারেন


সর্বশেষ সংবাদ