অপরাধ-দুর্নীতি

এমবিবিএস ডাক্তার স্বামীর পুরুষাঙ্গ কেটে নিলো স্ত্রী

স্ত্রীর বিরুদ্ধে পটুয়াখালীতে পরকীয়ার জেরে এমবিবিএস ডাক্তার স্বামীর পুরুষাঙ্গ কেটে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। গুরুতর আহত ডাক্তার মো. মনির হোসেনকে হেলিকপ্টারযোগে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেওয়া হয়েছে।

তবে আহত ডাক্তার মনির হোসেন আশঙ্কামুক্ত বলে নিশ্চিত করেছেন তার ভাই অ্যাডভোকেট মনজু মৃধা। এ ঘটনায় পটুয়াখালী শহর জুড়ে আলোচনা-সমালোচনার ঝড় বইছে।

ডাক্তার মো. মনির হোসেন পটুয়াখালী পৌরসভার সাবেক মেয়র ডাক্তার শফিকুল ইসলামের ভাই। শহরের প্রাইভেট স্বাস্থ্য সেবা সেন্টার হেলথ কেয়ার ক্লিনিকের মালিক তিনি। এছাড়া তিনি বাংলাদেশ ডায়াগনোস্টিক সেন্টারের সদস্য।

জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে পরকীয়ার জেরে মনির হোসেনের স্ত্রী মম আক্তারের সঙ্গে তার কলহ চলে আসছিলো। এরই ধারাবাহিকতায় গত বুধবার রাতে স্ত্রী তার পুরুষাঙ্গ কেটে দেয়। পরে পরিবারের সদস্যরা তাকে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। ওই রাতেই তার অস্ত্রোপচার করা হয়।

হাসপাতালে উপস্থিত একাধিক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, গত বুধবার মধ্য রাতে গুরুতর আহত অবস্থায় ডাক্তার মনির হোসেনকে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আনা হয়। রাতেই কয়েকজন চিকিৎসক তার অস্ত্রপোচার করেন। পরে গতকাল বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) দুপুরে উন্নত চিকিৎসার জন্য হেলিকপ্টার যোগে তাকে ঢাকায় নেওয়া হয়।

মনির হোসেনের বাসার গৃহপরিচারিকা শাবানা বেগম বলেন, আমি প্রতিদিন সকাল ৯টার দিকে তার বাসায় গিয়ে বাসার যাবতীয় কাজ করে দুপুর ১২টার মধ্যে চলে আসি। স্বামী-স্ত্রীর মধ্য কী হয়েছে তা আমি জানি না। স্যারের স্ত্রী বেশির ভাগ সময় ঢাকায় থাকেন। সৃষ্টি নামে তাদের একটি মেয়ে সন্তান রয়েছে।

পটুয়াখালী ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের এক জুনিয়র কন্সালটেন্ট বলেন, শুনেছি মনিরের স্ত্রী মানসিকভাবে অসুস্থ। তারই পরিপ্রেক্ষিতে এই ঘটনার সূত্রপাত হতে পারে।

ডাক্তার মনির হোসেনের ভাই মজনু মৃধা বলেন, মনির এখন সুস্থ রয়েছে। স্ত্রী তার সঙ্গেই আছে। অন্য কোনো বিষয়ে কথা বলতে চাইলে তিনি ব্যস্ততা দেখিয়ে ফোনটি কেটে দেন।


জুমবাংলানিউজ/ জিএলজি




আপনি আরও যা পড়তে পারেন


সর্বশেষ সংবাদ