চট্টগ্রাম বিভাগীয় সংবাদ

কক্সবাজারে ডলফিনের পুরো দলটিকে হত্যা করা হয়েছে!

জুমবাংলা ডেস্ক : পর্যটক শূন্য কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে খেলা করা ডলফিনের পুরো দলটিকে হত্যা করা হয়েছে। জেলের জালে আটকা পড়ায় ১০-১২টা ডলফিনের দলটি হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। আজও কক্সবাজারের ইনানী সমুদ্র সৈকতে ভেসে এসেছে আরো একটি মৃত ডলফিন। এই ডলফিনের শরীরে আঘাতের চিহ্ন ও জাল আটকানো আছে। জেলেরা ডলফিনের দলটি হত্যা করেছে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছে।


করোনার কারণে পর্যটকশূন্য কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে খেলা করা ডলফিনের পুরো দলটিকে হত্যা করা হয়েছে। সাগরে মাছ ধরার সময় জেলেদের ফাঁদে আটকা পড়ায় ডলফিনগুলো হত্যা করা হয়। মৃত ডলফিনগুলো কক্সবাজারের সৈকতে ভেসে আসছে। প্রত্যেক ডলফিনের শরীরে আঘাতের চিহ্ন ও জালের আঘাত রয়েছে। এমনকি জালে আটকানো মৃত ডলফিনও ভেসে আসছে। গতকাল টেকনাফ উপকূলে দুটি মৃত ডলফিন ভেসে আসার পরে আজ রবিবারও কক্সবাজারের ইনানী সমুদ্র সৈকতে আরো একটি মৃত ডলফিন ভেসে এসেছে। এছাড়াও সাগরে আরো ৫-৭ টি মৃত ডলফিন ভাসতে দেখেছেন বলে জানিয়েছেন জেলেরা।

ডলফিন মারা যাওয়ার খবর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। জেলেদের জালে আটকা পড়া ডলফিন হত্যা করার খবরে সবাই উদ্বেগ প্রকাশ করে। অনেকে ডলফিন হত্যায় জড়িত জেলেদের আইনের আওতায় আনার দাবি জানান।

কয়েকদিন আগেও কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে বিরল ডলফিন দল বেঁধে খেলা করতে দেখা গেছে। কিন্তু জেলেদের উৎপাতে কয়েকদিন ধরে এই ডলফিন দেখা যাচ্ছিলো না।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, ডলফিন খাদ্য সংগ্রহের জন্য মাছের ঝাঁকের পেছনে থাকে। জেলেরাও বিষয়টা জানে। মাছধরার জন্য জেলেরা সাগরের ডলফিনের দলটা চারপাশে জাল দিয়ে ঘিরে ফেলে। এসময় জেলেদের জালে আটকা পড়া ডলফিনগুলোকে জাল থেকে বের করতে হত্যা করা হয়। কিছু ডলফিন জালে আটকানো রেখে জালসহ কেটে দিয়ে মেরে ফেলা হয়।

যাদের বাচ্চা আছে, এই এক গেইমে আপনার বাচ্চার লেখাপড়া শুরু এবং শেষ হবে খারাপ গেইমের প্রতি আসক্তিও।ডাউনলোডকরুন : http://bit.ly/2FQWuTP

আরও পড়ুন

মেছো বাঘকে পিটিয়ে হত্যা করে ঝোলানো হলো গাছে

Shamim Reza

প্রেমিকাকে বন্ধুদের হাতে তুলে দিলো প্রেমিক

Shamim Reza

চতুর্থ বিয়ে করতে এসে কারাগারে বর

Shamim Reza

চিলমারীতে ব্রহ্মপুত্রের ভাঙনে হুমকির মুখে কোটি টাকার আশ্রয়নকেন্দ্র

azad

করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু, হাসপাতালে মরদেহ রেখে পালিয়েছে স্বজনরা

Sabina Sami

ছেলের অত্যাচার সইতে না পেরে বাড়ি ছাড়লেন বাবা

Sabina Sami