ক’রো’নার ভয়ে ১৫ মাস ঘরবন্দি, উদ্ধার করল পুলিশ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ভারতের অন্ধ্রপ্রদেশের একই পরিবারের তিন নারীর করোনা আক্রান্ত হওয়ার ভয় মনের মধ্যে গেঁথে গিয়েছিল। তাই ১৫ মাস নিজেদের ঘরবন্দি করে রাখেন তারা। অন্ধ্রপ্রদেশের পূর্ব গোদাবরী জেলার কাদালি গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে। গত সোমবার তাদের ঘর থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। দীর্ঘ দিন নিজেদের ঘরবন্দি রাখার ফলে অপুষ্টিতে ভুগতে শুরু করেছিলেন তারা। তাদের উদ্ধারের পর হাসপাতালে পাঠানো হয়।

হাসপাতাল সুপার প্রভাকর রাও জানিয়েছেন, ওই মহিলাদের শরীরে ভিটামিন ডি এবং বি কমপ্লেক্সের অভাব দেখা দিয়েছে। হিমোগ্লোবিনের মাত্রা অত্যাধিক নেমে গেছে। মানসিক ভাবে অসুস্থও হয়ে পড়েছেন তারা।

স্থানীয় সূত্র জানায়, দুই মেয়ে, এক ছেলে এবং স্ত্রীকে নিয়ে কাদালি গ্রামে দীর্ঘ দিন ধরেই বাস করছেন বছর পঞ্চাশের জন বেনি। ভারতে কভিড সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর থেকেই ওই পরিবারের মধ্যে একটা ভীতি ঢুকে যায়। পাশের বাড়ির এক মহিলা কভিড-আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়ার পর সেই ভীতি আরো বেড়ে যায়। তার পর থেকেই বেনির স্ত্রী এবং দুই মেয়ে নিজেদের ঘরবন্দি করে ফেলেন। এভাবেই ১৫ মাস কাটিয়ে দেন তাঁরা।

মাঝেমধ্যে বেনি এবং তাঁর ছেলে বাড়ির বাইরে বেরতেন। দেশটিতে কভিডের দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হতেই বেনি এবং তাঁর ছেলেও বেরোনো বন্ধ করে দেন। বেনির এক আত্মীয় বিষয়টি গ্রাম প্রধানকে জানান। তখন তিনি পুলিশে খবর দেন। পুলিশ এসে ঘর থেকে তিন মহিলাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়। সূত্র : আনন্দবাজার।


জুমবাংলানিউজ/এসআর