in

করোনায় ২৭০ দিন বন্ধ, দোকানপাট খুলতে চান ব্যবসায়ীরা

চলমান বিধি-নিষেধ আগামী ৫ আগস্ট শেষ হচ্ছে। এর মধ্যেই আরো ১০ দিন চলমান বিধি-নিষেধ বা কঠোর লকডাউন বৃদ্ধির সুপারিশ করেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। তবে জীবন-জীবিকা বাঁচাতে আগামী শুক্রবার (৬ আগস্ট) থেকে সব ধরনের দোকানপাট, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বিপণিবিতান খুলে দেওয়ার দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি।

রবিবার (০১ আগস্ট) রাজধানীর নিউমার্কেটে দোকান মালিক সমিতির কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানান সমিতির নেতারা।

সংবাদ সম্মেলনে দোকান মালিক সমিতির নেতারা দাবি করেন, দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হওয়ার পর গত ১৭ মাসের মধ্যে ২৭০ দিন দোকানপাট বন্ধ ছিল। এ সময়ে বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির ৫৩ লাখ ৭২ হাজার ৭১৬টি দোকানের ক্ষতির পরিমাণ দুই লাখ ৭০ হাজার কোটি টাকা। এ ছাড়া বাংলাদেশ বস্ত্র ব্যবসায়ী সমিতির দেড় লাখ দোকানের ক্ষতি ২০ হাজার ৫০০ কোটি টাকা, বাংলাদেশ টাইলস ব্যবসায়ী সমিতির ১২ হাজার দোকানের ক্ষতি ১৫ হাজার কোটি টাকা। বাকি ক্ষতি হয়েছে অন্য ছয়টি সমিতির।

দোকান মালিক সমিতির সভাপতি হেলাল উদ্দিন বলেন, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের অবস্থা খুব খারাপ। দোকান বন্ধ। তাদের আয়ও বন্ধ। তাদের জীবন এখন থমকে গেছে। তাই সরকারের প্রতি আমরা আবেদন করেছি এসব ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন দোকান মালিক সমিতির মহাসচিব জহিরুল হক ভূঁইয়া, ট্যুর অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের সভাপতি রফিউজ্জামান, বাংলাদেশ টাইলস ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক গোলাম রসুল বেলালসহ অন্যরা।

করোনা সংক্রমণ রোধে সরকার গত ১ জুলাই থেকে কঠোর বিধি-নিষেধের ঘোষণা দেয়। তবে ঈদুল আযহার জন্য ১৯ জুলাই থেকে ২২ জুলাই পর্যন্ত বিধিনিষেধ কিছুটা শিথিল করা হয়। এরপর আবার ২৩ জুলাই থেকে ৫ আগস্ট কঠোর লকডাউনের ঘোষণা দেয় সরকার। তবে ১ আগস্ট থেকে কারখানা খুলে দেওয়া হয়েছে।

অনলাইনে খুব সহজে টাকা ইনকাম করার উপায়