in , ,

কলকাতায় ভুয়া ‘ভ্যাকসিন শিবির’, টিকা নিয়েছেন সাংসদ মিমিও

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: খোদ কলকাতার বুকে রীতিমতো শিবির করে জাল টিকা দেয়া হলো। আর সেখানে অন্যদের সঙ্গে টিকা নিয়েছেন তৃণমূলের তারকা সাংসদ মিমি চক্রবর্তীও। এই শিবিরের আয়োজক ছিলেন দেবাঞ্জন দেব। তার কাহিনিও চিত্তাকর্ষক। তিনি নিজেকে আইএএস এবং যুগ্মসচিব পর্যায়ের অফিসার বলে পরিচয় দিতেন। সেটাও জাল। আবার এই জাল আইএএসের সঙ্গে তৃণমূলের অনেক নেতার ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক ছিল ও আছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। খবর পিটিআই ও আনন্দবাজার পত্রিকার।

কাহিনির এখানেই শেষ নয়। কলকাতার তালতলায় রবীন্দ্রনাথের মূর্তির ফলকে মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়, বিধায়ক নয়না বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেবাঞ্জন দেবের নামও আছে। তার পরিচয় দেয়া হয়েছে, পশ্চিমবঙ্গ সরকারের যুগ্মসচিব।

বিজেপি’র রাজ্য মিডিয়া সেলের প্রধান সপ্তর্ষি চৌধুরী ওই ফলকের ছবি দিয়েছেন নেটমাধ্যমে। তারপর ব্যাপক হইচই শুরু হয়েছে। তৃণমূল নেতাদের সঙ্গে এই জাল আইএএসের সম্পর্ক নিয়ে জলঘোলা হচ্ছে।

দেবাঞ্জন দেবকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। তিনি কসবায় একটি ব্যাঙ্কের বাড়ির দোতলায় ভ্যাকসিন শিবির চালাচ্ছিলেন। তিনি নিজেকে আইএএস অফিসার ও কলকাতা পুরসভার যুগ্ম কমিশনার বলে পরিচয় দেন এবং দাবি করেন যে, পুরসভা ওই ভ্যাকসিন কেন্দ্র চালাচ্ছে। দশ দিন ধরে কেন্দ্র চলছিল। সাংসদ মিমি চক্রবর্তীও সেখানে টিকা নেন। তারপর সার্টিফিকেট চাইলে উদ্যোক্তারা বলেন, একটু পরে দিচ্ছি। পরে তার সহায়ককে সার্টিফিকেট নিয়ে যেতে বলা হয়। কিন্তু তাকেও কোনো সার্টিফিকেট দেয়া হয়নি।

সাংসদের উদ্যোগেই জাল ভ্যাকসিন শিবিরের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে পুলিশ। পুরসভার ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা সাংসদকে জানিয়েছেন, কোভিশিল্ড বা কোভ্যাকসিন নয়, হাম বা বিসিজির টিকা বা পাউডার গোলা জল করোনার টিকা বলে দেয়া হয়েছিল। মিমি চক্রবর্তী আনন্দবাজারকে জানিয়েছেন, ফরেনসিক বিশেষজ্ঞদের কাছ থেকে এই খবরটা পেয়ে তিনি চিন্তিত হয়ে পড়েন। চিকিৎসককে ফোন করেন। চিকিৎসকরা জানান, এক ধরনের অ্যান্টিবায়োটিক জলে গুলে দেয়া হয়েছে। পেট বা মূত্র সংক্রমণে ওই কড়া ওষুধ দেয়া হয়। তবে জলে গুলে দেয়ায় তা ক্ষতি করবে না। মিমি সুস্থ আছেন।

পরে পুলিশ তদন্তে নেমে দেখে আমহার্স্ট ট্রিটের একটি কলেজেও দেবাঞ্জন ভ্যাকসিন শিবিরের আয়োজন করেছিল। সেখানে অধ্যক্ষ সহ একশ জন টিকা নিয়েছেন। তাছাড়া আগে পুরসভায় চাকরি দেয়ার নাম করে প্রচুর মানুষের ইন্টারভিউ নিয়েছেন। তাদের ব্যাঙ্ক ডিটেলও নিয়েছেন।

কিন্তু বিজেপি দেবাঞ্জনের সঙ্গে তৃণমূল নেতাদের সম্পর্ক নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে। সপ্তর্ষি চৌধুরী বলেছেন, ”শাসক দলের সঙ্গে ভ্যাকসিন কেলেঙ্কারির নায়কের কী সম্পর্ক আছে?” তৃণমূলের বিধায়ক এবং উপ মুখ্য সচেতক তাপস রায় জানিয়েছেন, তালতলার অনুষ্ঠানে তিনি ছিলেন না।