কিশোরের মুখে ৮২টি দাঁত, হতবাক চিকিৎসকরা!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : মুখের দু’পাশ বেশ ফোলা ও প্রচণ্ড যন্ত্রণা। এ অবস্থায় চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে যান এক কিশোর। কিন্তু তার মুখের ভেতর পরীক্ষা করে দেখতেই হতবাক হয়ে যান চিকিৎসকরা। কারণ একজন স্বাভাবিক পূর্ণবয়স্ক মানুষের যেখানে ৩২টি দাঁত থাকার কথা, সেখানে ওই কিশোরের মুখে ৮২টি দাঁতের সন্ধাণ পান তারা।

সম্প্রতি ভারতের বিহার রাজ্যের আরা জেলায় ঘটেছে এই ঘটনা। ১৭ বছর বয়সী ওই কিশোর নীতিশ কুমারের চোয়ালের এই দাঁতগুলি স্বাভাবিক দাঁত থেকে আলাদা ছিল এবং সময়ের সাথে সাথে এগুলিও বাড়ছিল।

নীতীশ দিল্লিসহ ভারতের অনেক বড় শহরে চিকিৎসার জন্য দৌড়েছেন, তবে বিষয়টি চিকিৎসকদের নাগালের বাইরে ছিল। নীতীশের বাইরের উভয় চোয়ালের নীচের অংশে এতটা ফোলা ছিল যে মুখটি খুলতে কষ্ট হত তার। তার মুখ এতটাই বিকৃত হয়েছিল যে এটি দেখে লোকেরা ভয় পেত।

পাটনার ইন্দিরা গান্ধী ইনস্টিটিউট অফ মেডিকেল সায়েন্সের (আইজিআইএমএস) ম্যাগিলোফেসিয়াল ইউনিট প্রথম টিউমারটি সনাক্ত করে। যখন উভয় চোয়ালের মধ্যে টিউমারটি ছড়িয়ে পড়ে তখন অপারেশন করা হয়। তবে তখন ৮২টি দাঁতের একটি গোছা পাওয়া গেছে নীতিশের চোয়ালে।

নীতীশ এখন পুরোপুরি সুস্থ। চিকিৎসকরা বলেছেন যে খুব শিগগিরই রোগীকে ছেড়ে দেওয়া হবে। চিকিৎসদের দাবী, দেশে এখনও এ ধরণের ঘটনা সামনে আসে নি।

চোয়ালের এই বিরল টিউমারটিকে জটিল ওডনটোম বলে। ইজিআইএমএসের মেডিকেল সুপারিনটেনডেন্ট ডাঃ মনীশ মণ্ডল জানান, নীতীশ কুমার খুব মন খারাপ করেছিলেন। ব্যথার কারণে তিনি কিছু খেতে বা পান করতে পারতেন না। যদিও মুখের অভ্যন্তরে কোনো সমস্যা ছিল না, বাইরে উভয় চোয়ালের নীচের অংশে এতটা ফোলা ছিল যে মুখ খোলাও বেদনাদায়ক ছিল। লোকেরা তাকে দেখে ভয় পেত। নিতিশ কুমার অনেক আত্মবিশ্বাস নিয়ে আইজিআইএমএসে এসেছিলেন বলেও জানান তিনি।

ডাঃ মন্ডল আরো জানান, আইটিআইএমএস-এ পরীক্ষার পরে নীতীশের চোয়ালে টিউমার রয়েছে বলে সনাক্ত করা হয়েছিল। সঠিক চিকিৎসা না করার কারণে তিনি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। ডাক্তারদের টিম কমপ্লেক্স ওডনটোম নামক চোয়ালের এই বিরল টিউমারটি কেটে বাদ দেয়।

সূত্র: ভারত টাইমস


জুমবাংলানিউজ/এসআই