দক্ষিণ আফ্রিকায় সহিংসতা থামাতে ২৫ হাজার সেনা মোতায়েন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : দক্ষিণ আফ্রিকায় চলমান দাঙ্গায় নিহতের সংখ্যা ১০০ ছাড়িয়েছে। এর প্রেক্ষাপটে দেশটিতে সহিংসতা দমনে পুলিশকে সহায়তা করার জন্য ২৫ হাজার সৈন্য মোতায়েন করা হয়েছে। সাবেক প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমাকে কারারুদ্ধ করার প্রেক্ষাপটে শুরু হওয়া দাঙ্গায় এ পর্যন্ত অন্তত ১১৭ জন নিহত হয়েছেন।

দক্ষিণ আফ্রিকায় ১৯৯৪ সালে শ্বেতাঙ্গ সংখ্যালঘু শাসন অবসানের পর এই প্রথম এত বিপুলসংখ্যায় সৈন্য মোতায়েন করা হলো। সরকার জানিয়েছে, রাস্তায় রাস্তায় টহল দিচ্ছে ১০ হাজার সৈন্য। আর সাউথ আফ্রিকান ন্যাশনাল ডিফেন্স ফোর্সও ১২ হাজার রিজার্ভ ফোর্স তলব করেছে। দক্ষিণ আফ্রিকার সবচেয়ে জনবহুল গুতেং প্রদেশে গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই সশস্ত্র সৈন্যদের টহল দিতে দেখা যায়। উল্লেখ্য, রাজধানী জোহানেসবার্গ ও নির্বাহী রাজধানী প্রিটোরিয়া এই প্রদেশেই অবস্থিত।

সৈন্যদের পরিবহনে বাস, ট্রাক, বিমান ও হেলিকপ্টারও ব্যবহার করতে দেখা যায়। গত শুক্রবার দেশটিতে উত্তেজনা দেখা দেয়। সাবেক প্রেসিডেন্ট জুমাকে কারাগারে নেয়ার প্রতিবাদে বিক্ষোভ হলেও বৈষম্য ও দারিদ্র্যের ব্যাপক বিস্তারও এতে ভূমিকা রাখছে। সহিংসতা দমনে ইতোমধ্যে ২২ শ’র বেশি লোককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

উচ্চপর্যায়ের একটি দুর্নীতি নিয়ে তদন্তে বিচার বিভাগীয় কমিটির কাছে হাজির না হওয়ায় ৭৯ বছর বয়স্ক জুমাকে কারাগারে পাঠানো হয়। তিনি ২০০৯ থেকে ২০১৮ পর্যন্ত দেশটির প্রেসিডেন্ট ছিলেন। তবে জুমা নিজেকে নির্দোষ দাবি করে বলেছেন, তিনি প্রতিহিংসার শিকার হয়েছেন।

গত মঙ্গলবার পর্যন্ত জোহানেসবার্গসহ বিভিন্ন শহরে সহিংসতায় নিহত হন অন্তত ৭২ জন। এরপর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সেনা মোতায়েন করেন প্রেসিডেন্ট সিরিল রামাপোসা। পরে কয়েকটি প্রদেশে সেনা মোতায়েন করা হয়। ১৫ মাসের কারাদণ্ডাদেশ পাওয়ার পর ৭ জুলাই পুলিশে আত্মসমর্পন করেন জুমা (৭৯)। পরে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। আদালত অবমাননার দায়ে গত ২৯ জুন জুমাকে এই কারাদণ্ড দেন আদালত।

সূত্র : আল জাজিরা।


জুমবাংলানিউজ/এসআর