in ,

দলের প্রয়োজনে সরে দাঁড়াবেন মরগান

মর্গান

স্পোর্টস ডেস্ক: চলমান টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে ফর্মে না থাকায় দলের অধিনায়ক ইয়োইন মরগানকে নিয়ে চিন্তায় ইংল্যান্ড। দীর্ঘদিন ধরেই ব্যাটে রান নেই মরগানের। তবে দলের প্রয়োজনে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণাও দিলেন মরগান।

তিনি জানান, দলের প্রয়োজনে নিজেকে সরিয়ে নেবো। বিশ্বকাপ জয়ের পথে দলে জন্য বাঁধা হয়ে দাঁড়াবো না।

চলতি বছরে সর্বশেষ সাতটি টি-টোয়েন্টিতে ইংল্যান্ডের হয়ে মাত্র ৮২ রান করেছেন মরগান। সদ্য শেষ হওয়া আইপিএলেও ব্যর্থ মরগানের ব্যাট। ১৬ ইনিংসে ১৩৩ রান করেছেন তিনি। গড় ১১ দশমিক ০৮। স্ট্রাইক রেট ৯৫ দশমিক ৬৮।

সাম্প্রতিক সময়ে মরগানের এমন ফর্ম ভাবিয়ে তুলেছে ইংল্যান্ডের টিম ম্যানেজমেন্টকে। সেটি বুঝতে পারছেন মরগান নিজেও । তাই ভার্চুয়াল সাংবাদিক সম্মেলনে নিজেকেই দল থেকে সরিয়ে নেয়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন তিনি।

মরগান বলেন, ‘বিকল্প পরিকল্পনা সব সময়ই তৈরি থাকে। বিশ্বকাপ জেতার পথে আমি কখনওই দলের অন্তরায় হয়ে দাঁড়াবো না। এই মুহূর্তে আমি প্রত্যাশিত ছন্দে নেই। রান না পেলেও অধিনায়কত্ব ভাল করছি বলেই মনে করি।’

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে  প্রস্তুতি ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে খেলেননি মরগান। ঐ ম্যাচে ৭ উইকেটে হারে ইংল্যান্ড। নিজেকে বিশ্রামে রেখেছিলেন তিনি। তবে দ্বিতীয় ও শেষ প্রস্তুতিমূলক ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে খেলেছিলেন মরগান। ১০ রানের বেশি করতে পারেননি তিনি।

মরগান বলেন, ‘ব্যাটিং নিয়ে সমস্যায় এর আগেও বহুবার পড়েছি এবং তা থেকে বেরিয়েও এসেছি। এই কারণেই আমি আজ এখানে। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের ধরন, আর যেখানে আমি ব্যাট করি, সেখানে আমাকে সবসময় ঝুঁকিপূর্ণ পথই বেছে নিতে হবে। আমি তা মেনেও নিয়েছি। দল যদি নির্দেশ দেয় ঝুঁকি নেয়ার, তা হলে আমি সেটাই করবো। দল না চাইলে করবো না।’

রানের মধ্যে না থাকলেও, অধিনায়কত্ব ভালো করছেন বলে জানান মরগান। তিনি বলেন, ‘আমি রানের মধ্যে নেই, কিন্তু আমার অধিনায়কত্ব বেশ ভালো হচ্ছে বলেই আমি মনে  করছি। আমি সবসময় রান করা এবং অধিনায়কত্ব এই দুই বিষয়কে আলাদাভাবে দেখেছি এবং চ্যালেঞ্জ নিয়েছি। আমিতো আর বোলার নই, বয়সও বাড়ছে, মাঠে হয়তো তেমন অবদান রাখতে পারি না, তবে আমি অধিনায়কের ভূমিকা পালন করতে পছন্দ করি।’

২০১৬ সালে সর্বশেষ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে মরগানের নেতৃত্বেই ফাইনালে উঠেছিলো ইংল্যান্ড। ভাগ্য সাথে না থাকায় শেষ ওভারে ম্যাচটি হারতে হয় ইংলিশদের। সেই যন্ত্রনা তিন বছর পর মুছে ফেলেন মরগান।  তার অধিনায়কত্বেই ২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপের শিরোপার স্বাদ পায় ইংল্যান্ড। সূত্র: বাসস