Views: 94

অর্থনীতি-ব্যবসা জাতীয়

দেশে পর্যটনখাতে চাকরি হারাতে পারে দেড় লাখ

জুমবাংলা ডেস্ক : গত সোমবার ‘বাংলাদেশের পর্যটন শিল্প এবং ট্র্যাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম মেলা ২০২০-এর ওপর করোনা ভাইরাসের প্রভাব’ শীর্ষক এক সংবাদ সম্মেলনে এতথ্য জানান সংশ্লিষ্টখাতের শীর্ষ ব্যবসায়ী সংগঠন টোয়াবের নেতারা।

পর্যটন এবং আতিথেয়তা সংশ্লিষ্ট শিল্পে বর্তমানে সরাসরি পাঁচ লাখ মানুষের কর্মরত আছেন। তবে করোনা ভাইরাসের প্রভাবে এসব কর্মীর ২০-৩০ শতাংশ তাদের চাকরি হারাতে পারেন। অর্থাৎ এ খাতে প্রায় দেড় কর্মীর চাকরি নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। ট্যুর অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (টোয়াব) এর সভাপতি মো. রাফিউজ্জামান এই তথ্য জানিয়েছেন।

এই ব্যাপারে টোয়াব সদস্য এবং ভ্রমণ ব্যবস্থাপনা কোম্পানি জার্নি প্লাসের শীর্ষ নির্বাহী কর্মকর্তা তৌফিক রহমান বলেন, গত ফেব্রুয়ারি থেকে আগামী এপ্রিল নাগাদ আমরা পর্যটন সংশ্লিষ্ট শিল্পে সাড়ে চার থেকে পাঁচ হাজার কোটি টাকা লেনদেন আশা করেছিলাম। কিন্তু এখন সেটা কমার শঙ্কা দেখা দিয়েছে।

টোয়াব নেতারা গত সোমবার ‘বাংলাদেশের পর্যটন মেলা, শিল্প এবং ভ্রমণখাতে করোনা ভাইরাসের প্রভাব ২০২০’ শীর্ষক এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানিয়েছেন।

জাতীয় প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এই সংবাদ সম্মেলনে ব্যবসায়ী নেতারা গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে তাদের নিজস্ব উদ্বেগ ও শঙ্কার কথাও তুলে ধরেন। বর্তমান সংকটকে তুলে ধরে এই অবস্থায় তারা সরকারের কাছে সংশ্লিষ্ট শিল্পের জন্য বিশেষ প্রণোদনা দেওয়ার দাবি করেছেন।

তৌফিক রহমান বলেন, ‘সম্পূর্ণ ক্ষতির অংক আমরা এখনও নির্ণয় করতে পারিনি। তবে দেশের ভেতরে এবং বাইরে ভ্রমণের সুবিধা দেন এমন ব্যবসায়ী, হোটেল মালিক এবং স্থানীয় বিমান পরিবহন শিল্প সার্বিকভাবে সবচেয়ে বেশি ক্ষতির মুখে পড়েছে।

এই অবস্থায় টোয়াব তাদের সর্ববৃহৎ বার্ষিক অনুষ্ঠান ‘বাংলাদেশ ট্র্যাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম ফেয়ার ২০২০’ বাতিল করতে বাধ্য হয়। এটি আগামী ৩ থেকে ৫ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল।

নির্ধারিত তারিখ পিছিয়ে তা এখন আগামী ২৯ থেকে ৩১ অক্টোবর করার তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে, যা অনুষ্ঠিত হবে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে।

টোয়াব নেতারা সংশ্লিষ্ট শিল্পে করোনা ভাইরাসের কারণে সৃষ্ট বর্তমান সংকট মোকাবেলায় সরকারের প্রতি বেশ কিছু জরুরি পদক্ষেপ নেওয়ার সুপারিশ করেন। এসব সুপারিশের মধ্যে রয়েছে; স্বল্প খরচ এবং সহজে ভিসা সুবিধা, বিমান এবং স্থল বন্দরে অপ্রয়োজনীয় বিধিনিষেধ শিথিল করা, পর্যটক এবং উড়োজাহাজের টিকিটে নির্ধারিত কর কমানো, কর রেয়াত এবং সহজ শর্তে ব্যাংক ঋণের সুবিধা ইত্যাদি।

এসব দাবির প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড (বিটিবি) এর শীর্ষ নির্বাহী কর্মকর্তা জাভেদ আহমেদ জানান, পর্যটন ও বেসামরিক বিমান চলাচলা মন্ত্রণালয় এই বিষয়ে একটি ‘সংকটকালীন কমিটি’ গঠন করেছে। তিনি বলেন, এই কমিটিতে সংশ্লিষ্ট সকল কর্তৃপক্ষ এবং বেসরকারিখাতের উদ্যোক্তাদের প্রতিনিধিদের উপস্থিতি থাকবে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন টোয়াবের সহ-সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, বাণিজ্য ও মেলা বিষয়ক পরিচালক আনোয়ার হোসাইন এবং আর্থিক ব্যবস্থাপনা পরিচালক মনিরুজ্জামান মাসুম।


আরও পড়ুন

বাংলাদেশি নাগরিকদের থাইল্যান্ড ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা

Saiful Islam

রাতের ফেরিতেও ঢাকামুখী বাঁধভাঙ্গা জনস্রোত (ভিডিও)

Shamim Reza

এভাবে বাড়িফেরা আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

Shamim Reza

তৃতীয় সন্তান মেয়ে হবে জেনে ২ হাজার টাকায় ছেলে নবজাতক কিনেন তিনি

globalgeek

দেশে টাকায় করোনাভাইরাসের উপস্থিতি দাবি একদল গবেষকের

Shamim Reza

আমাদের অবস্থা ভারত-নেপালের মতো ভয়াবহ হতে পারে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

Saiful Islam