ধর্ষকের চোখে-মুখে মরিচের গুঁড়া ছিটিয়ে বাঁচলো কিশোরী

জুমবাংলা ডেস্ক : চট্টগ্রামে ব্ল্যাকমেইল করে এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে মো. জাহাঙ্গীর আলম (২২) নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সোমবার (১২ জুলাই) রাতে নগরীর আগ্রাবাদ সিডিএ আবাসিক এলাকা থেকে ডবলমুড়িং থানার পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে।

গ্রেপ্তার মোঃ জাহাঙ্গীর আলম কুমিল্লা জেলার চান্দিনা থানার মহনপুর গ্রামের মো. ওয়াহিদের ছেলে।

পুলিশ জানায়, জাহাঙ্গীর এই কিশোরীর ছবি এডিট করে নগ্ন ছবি বানিয়ে তা ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে তাকে ধর্ষণ করে। এরপর আরও দুইবার ধর্ষণের চেষ্টা করলে কিশোরীটি ধর্ষকের চোখে-মুখে মরিচের গুঁড়া ছিটিয়ে আত্মরক্ষা করে।

ডবলমুরিং থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীন বলেন, ভিকটিম ১৪ বছরের কিশোরী। স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণির শিক্ষার্থী। তার বাবা ফলের ব্যবসায়ী এবং মা গার্মেন্ট কর্মী। জাহাঙ্গীর প্রায়ই ভিকটিমকে বিরক্ত করত, কথা বলতে চাইত। কিন্তু ভিকটিম তাকে গুরুত্ব দিত না। একদিন কেউ না থাকার সুযোগে জাহাঙ্গীর বাসায় চলে আসে।

এসময় ভিকটিম চিৎকারের চেষ্টা করলে জাহাঙ্গীর তাকে কিছু নগ্ন ছবি দেখায়। মূলত ভিকটিমের ছবি এডিট করে জাহাঙ্গীরই এই নগ্ন ছবি বানায়। এসব ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে ১৪ বছরের সেই কিশোরীকে ধর্ষণ করে।

ওসি মহসিন বলেন, এ ঘটনার পরপরই ভিকটিম তার মোবাইল বন্ধ করে দেয়। কিন্তু লোকলজ্জার ভয়ে ঘটনা কাউকেই বলেনি। তার কিছুদিন পর আবারও জাহাঙ্গীর আসে। কিন্তু তাকে দরজায় আসতে দেখেই ভিকটিম মরিচের গুঁড়া নিয়ে তার চোখে মুখে ছিটিয়ে দেয় এবং সেদিনের মত নিজেকে রক্ষা করে। এরপর জাহাঙ্গীর আরও একবার আসে। ভিকটিম একই কায়দায় মরিচের গুঁড়া ছিটিয়ে আত্মরক্ষা করে। মরিচের গুঁড়ার ভয়ে কাছে ঘেঁষতে না পারায় জাহাঙ্গীর অন্যভাবে কিশোরীকে ঘায়েল করার চেষ্টা করে। শেষে আজ ৯৯৯ এ ফোন করে অভিযোগ জানালে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। ভিকটিমের মা বাদী হয়ে জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছেন।


জুমবাংলানিউজ/এসআর