আন্তর্জাতিক

ধুতি পরে ক্রিকেট মাঠে পুরোহিতরা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : জেতার জন্য চাই মাত্র ছেষট্টি রান! তুড়ি মেরে তুলে ফেলবেন এমন ভাব করে পরনের ধুতি কষে এঁটে মাঠে নেমে পড়লেন দুই ব্যাটসম্যান! চারদিকে ছড়িয়ে ফিল্ডিং সাজানোর ফাঁকে বল হাতে বিপক্ষের অধিনায়ক চোখ পাকিয়ে বলে উঠলেন, ‘‘দেখ, ক’টা ওভার টিকতে পারিস।’’ বলে, ধুতিতে মালকোঁচা মেরে বল হাতে ছুটে গেলেন ক্রিজের দিকে।

প্রথম বলটা ঠিকই ছিল, পরের বল আরও জোরে করতে গিয়ে হারালেন লেংথ। সঙ্গে-সঙ্গে মাথার উপর দিয়ে তুলে চার। দু’একটা উইকেট পড়লেও ছেষট্টি রান তুলতে বেগ পেতে হয়নি।

গতকাল বুধবার ভারতের নবদ্বীপে কর্মমন্দিরের মাঠে যারা ব্যাট-বল হাতে লাফিয়ে-ঝাঁপিয়ে বেড়ালেন, তাদের সারা বছর অন্য রূপে দেখতেই অভ্যস্ত কলকাতাবাসী।

দুর্গা বা কালীপুজোর মণ্ডপ কিংবা বিয়ে-পৈতের আসর তাদের ছাড়া ভাবাই যায় না। সেই পুরোহিতরা মেতে উঠেছিলেন নবদ্বীপ সারস্বত সভার আয়োজনে টি-টোয়েন্টি ম্যাচে।

তাতে যেমন ছিলেন নবদ্বীপের ৬৮ বছরের করুণাশঙ্কর রায়, পুটশুরির ৬৭ বছরের ধীরেন চক্রবর্তী বা কৃষ্ণনগরের ৬২ বছরের জয়দেব গোস্বামীরা, তেমন ছিলেন রানাঘাটের ২১ বছরের জ্যোতির্ময় রায় বা নবদ্বীপের ১৮ বছরের স্বয়ম্ভু ভট্টাচার্য।

নবীন-প্রবীণ মিলিয়ে বিভিন্ন জায়গা থেকে পৌরহিত্যের সঙ্গে যুক্ত জনা ৪৫ মানুষ হাজির ছিলেন। মন্ত্র, অঞ্জলি, ফুল-বেলপাতা, হোম সচ্ছন্দ পুরোহিতদের নিয়ে ক্রিকেটের আয়োজন কেন?

নবদ্বীপ সারস্বত সভার পক্ষ থেকে সুশান্ত ভট্টাচার্য বলেন, পুরোহিত বলে কি ক্রিকেটে আগ্রহ থাকবে না? বুধবার ক্রিকেটের সঙ্গে হলো জমজমাট পিকনিক। খেলার আগে হাতে-হাতে কড়াইশুঁটি দিয়ে তেল-মাখানো মুড়ির বাটি, সঙ্গে গরমাগরম বেগুনি আর চা।

মাঠ থেকে খানিক দূরে উনুনে কাঠের জ্বালে ততক্ষণে বসে গেছে ‘কিশোরী অন্ন’ বা গোবিন্দভোগ চালের সঙ্গে সোনামুগের ডালের খিচুড়ি। খেলার শেষে গঙ্গার ধারে বসে দারুণ ভোজ।

গতকালের খেলুড়েদের অনেকেই নবদ্বীপ বঙ্গবিবুধ জননী সভা পরিচালিত ‘পুরোহিত রত্ন’ উপাধির ছাত্র। মুর্শিদাবাদ, বর্ধমান, হুগলির নানা প্রান্ত থেকে এসেছিলেন তারা। কেউ পেশাদার পুরোহিত, কেউ আবার চাকরি থেকে অবসর নিয়ে শখে পৌরহিত্য পড়তে এসেছেন।

কৃষ্ণনগরের জয়দেব গোস্বামী রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের চাকরি থেকে অবসর নিয়ে প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন। মৃত্যুঞ্জয় অধিকারী ছিলেন ফিজিয়োথেরাপিস্ট। তিনি সেই কাজ ছেড়ে পৌরহিত্যে ঝুঁকেছেন। চাকদহের শেখর চক্রবর্তী একই সঙ্গে হোমিওপ্যাথি চিকিৎসা করেন এবং পৌরহিত্য প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন। ফুল-বেলপাতাকে আড়ালে রেখে গতকাল ব্যাট-বলে হাত লাগিয়েছেন তারা। -আনন্দবাজার পত্রিকা।


আরও পড়ুন

পাকিস্তানে ভয়ঙ্কর দিন আসছে, ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত বেড়ে দ্বিগুণ!

Shamim Reza

করোনা থেকে মুক্তি পেতে মদ্যপানে ৬০০ জনের মৃত্যু

Shamim Reza

করোনা যুদ্ধে ১০০ কোটি ডলার অনুদান টুইটার প্রতিষ্ঠাতার

Mohammad Al Amin

আইসিইউতে বরিস জনসনের অবস্থা স্থিতিশীল

azad

করোনা রুখতে মোদির সর্বদলীয় ভিডিও কনফারেন্স

rony

তুর্কমেনিস্তানে কেন করোনাভাইরাস নেই?

azad