Views: 17

চট্টগ্রাম বিভাগীয় সংবাদ

নগদ ডিস্ট্রিবিউটরের ২৫ লাখ টাকা আত্মসাতের দায়ে স্বামী-স্ত্রী গ্রেফতার

জুমবাংলা ডেস্ক : চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে নগদ ডিস্ট্রিবিউটরের ২৫ লাখ টাকা আত্মসাতের দায়ে স্বামী-স্ত্রীকে গ্রেপ্তার পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন–পিবিআই।

চাঁদপুর পিবিআইয়ের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. জুনায়েত কাউছার জানান, শুক্রবার ঢাকার দক্ষিণ কেরাণীগঞ্জের জিয়া নগরের ভাড়া বাসা থেকে নগদ ডিস্টিবিউটরের ক্যাশ ইনচার্জ সাগর কুমার দত্ত (৩৭) ও দ্বিতীয় স্ত্রী স্বপ্না রাণী ভৌমিককে (৩৫) গ্রেপ্তার করেছে পিবিআই।

এ সময় তাদের কাছ থেকে ১১ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানান মো. জুনায়েত। গ্রেপ্তার হওয়া সাগরের বাড়ি হাজীগঞ্জের মকিমাবাদ এবং তার দ্বিতীয় স্ত্রী স্বপ্ন রাণী ভৌমিকের বাড়ি নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও এলাকায়। মো. জুনায়েত কাউছার বলেন, ‘প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সাগর জানিয়েছে, তার দ্বিতীয় স্ত্রী স্বপ্না রাণীর প্ররোচনায় ২৫ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেছে।’

অভিযোগ সূত্র জানা গেছে, হাজীগঞ্জের আলীগঞ্জের নিজাম উদ্দিন আহমেদের মালিকানাধীন নগদ ডিস্ট্রিবিউটর মেসার্স ফরিদ আহমেদের ক্যাশ ইনচার্জ এবং আইটি বিশেষজ্ঞ হিসেবে সাগর কুমার দত্ত কর্মরত ছিল। সে সুবাদে প্রতিষ্ঠানের আর্থিক লেনদেন তার মাধ্যমেই করা হতো।

এরই ধারাবাহিকতায় গত ২০ মে দুপুরে সেলস অফিসার আবুল কালাম ও হৃদয় চন্দ্র দাশের সহায়তায় নগদ ৬ লাখ টাকা একাউন্টে জমা দেওয়ার জন্য এবং ১৯ লাখ টাকা উত্তোলনের জন্য চেক দিয়ে ব্যাংকে পাঠানো হয়। তবে আবুল কালাম ও হৃদয় চন্দ্রকে ব্যাংকের নিচে রেখে টাকা লেনদেনের জন্য ব্যাংকে যান সাগর কুমার দত্ত। এরপর ২৫ লাখ টাকা নিয়ে তিনি উধাও হয়ে যান।

পরবর্তীতে টাকা নিয়ে অফিসে না আসায় প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজার সোয়েব আক্তার ব্যাংকে গিয়ে এর সত্যতা জানতে পারেন। পরে ব্যাংকের ম্যানেজার বাদী হয়ে হাজীগঞ্জ থানায় একটি মামলা করলে এর তদন্তভার দেওয়া হয় পিবিআই-এর এসআই আমিরুল ইসলাম মীরকে।

চাঁদপুর পিবিআই-এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. জুনায়েত কাউছার জানান, গত ১১ জুন পুলিশ পরিদর্শক মীর মাহবুবুর রহমান ও তদন্ত কর্মকর্তা এসআই আমিরুল ইসলাম মীরের নেতৃত্বে একটি বিশেষ টিম ঢাকার দক্ষিণ কেরাণীগঞ্জ থানাধীন জিয়ানগর গ্রামে অভিযান চালায়। এ সময় একটি ভাড়া বাসা থেকে মামলার ঘটনায় জড়িত প্রধান আসামী সাগর কুমার দত্ত ও স্বপ্না রাণী ভৌমিককে গ্রেফতার করেন। জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে স্বপ্না ভৌমিক তার হেফাজতে থাকা ৭ লাখ টাকা এবং সাগর কুমার দত্তের হেফাজতে থাকা ৪ লাখ টাকা তদন্তকারী কর্মকর্তাকে দেয়। সাগর কুমার দত্ত ও স্বপ্না ভৌমিককে আদালতে সোপর্দ করে জিজ্ঞাসাবাদ ও অবশিষ্ট ১৪ লাখ টাকা উদ্ধারের জন্য পুলিশ রিমান্ডের আবেদন করা হয়েছে।

আরও পড়ুন

ব্যক্তিগত কারণে ‘স্বেচ্ছায় আত্মগোপনে’ ছিলেন আবু ত্ব-হা: পুলিশ

mdhmajor

রাজধানীতে মাদক বিক্রি ও সেবনের অভিযোগে গ্রেফতার ৬১

azad

জিম্মি করে পতিতাবৃত্তি: চট্টগ্রামে ৪ তরুণী উদ্ধার, গ্রেফতার ৬

Shamim Reza

ত্ব-হার ঘটনায় সংবাদ সম্মেলনে রংপুর ডিবি

Shamim Reza

রিসোর্টে অসামাজিক কাজ করায় ২৪ নারী-পুরুষ ধরা

Shamim Reza

ত্ব-হাকে ফিরে পাওয়ার পর যা বললেন স্বজনরা

Shamim Reza