নেতানিয়াহুকে আবারও ফোন করে সমর্থন, হামলা উস্কে দিলেন বাইডেন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: গাজা ও পশ্চিমতীরে ফিলিস্তিনিদের ওপর অব্যাহত আগ্রাসনের মধ্যে আবারও ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুকে ফোন করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

ইসরাইলি হামলাকে ’আত্মরক্ষার অধিকার’ বলে বৈধতা দেওয়া এই মার্কিন প্রেসিডেন্ট আবারও তেলআবিবের প্রতি শক্ত সমর্থন ব্যক্ত করেছেন।  তার এই ফোনের পরই ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী হামলা অব্যাহত রাখার ঘোষণা দেন।

অন্যদিকে ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসকে ফোন করে ইসরাইলে হামলা বন্ধ করতে বলেন।

রবিবার মার্কিন প্রেসিডেন্টের সঙ্গে পৃথক ফোনালাপ করেন বলে টুইটারে জানিয়েছে হোয়াইট হাউস।

হোয়াইট হাউসের বরাত দিয়ে আলজাজিরার খবরে বলা হয়েছে, আজ ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর সঙ্গে কথা বলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।  তিনি ইসরাইলের অধিকারের পক্ষে জোরালো সমর্থন জানিয়েছেন।  প্রেসিডেন্ট বলেন, হামাস ও অন্যান্য সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর রকেট হামলা ঠেকাতে নিজেকে রক্ষা করার অধিকার রয়েছে ইসরাইলের।

অন্যদিকে ইসরাইলকে লক্ষ্য করে গাজা থেকে রকেট হামলা বন্ধ করতে ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসকে বলেন বাইডেন। একই সঙ্গে তিনি ফিলিস্তিনের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের অংশীদারত্ব জোরদারে নিজের প্রতিশ্রুতিও ব্যক্ত করেন।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর এই প্রথম আব্বাসের সঙ্গে কথা হয়েছে বাইডেনের।

বাইডেনের এই ফোনে ফিলিস্তিনে হামলা উস্কে দেওয়া হিসেবে দেখা হচ্ছে। তিনি ইসরাইলিদের অধিকারের প্রতি তার (বাইডেন) একনিষ্ঠ সমর্থন অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন। বাইডেনের ফোন পেয়ে গাজা উপত্যকায় হামলা চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন নেতানিয়াহু।  তিনি বলেন, হামলা মধ্য পর্যায়ে আছে।  আরও চলবে। যতদিন প্রয়োজন ততদিন গাজায় হামলা চলবে এবং যতটা সম্ভব বেসামরিক ব্যক্তিদের হতাহত এড়ানো হবে।

শনিবার গাজায় যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক বার্তা সংবাদ সংস্থা অ্যাসোসিয়েটেড (এপি) ও কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরার কার্যালয় ভবনটিতে বোমা হামলা চালিয়ে উড়িয়ে দিয়েছে ইসরাইল।  আজ গাজায় হামাস প্রদানের বাড়িতে বোমা হামলা চালিয়েছে।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, মার্কিন প্রেসিডেন্ট এমন সময় নেতানিয়াহু ও আব্বাসকে ফোন করলেন, যার পর দিন তথা রোববার (বাংলাদেশ সময় সোমবার) ইসরাইল ও ফিলিস্তিনের মধ্যকার লড়াই নিয়ে বৈঠকে বসতে যাচ্ছে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ।

এদিকে এই সংকটের সমাধানে তেলআবিব পৌঁছেছেন যুক্তরাষ্ট্রের ফিলিস্তিন ও ইসরাইল সম্পর্কবিষয়ক ডেপুটি অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি হাদি আমর।  হাদির সফর সম্পর্কে ইসরাইলে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস বলেছে, দীর্ঘমেয়াদি শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে কাজ করবেন তিনি।  হাদি সেখানে ইসরাইল, ফিলিস্তিন ও জাতিসংঘের কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলবেন।

অবৈধ দখলদারিত্বের প্রতিবাদে গত ৯ মে রাতে আল-আকসায় মসজিদে শবেকদরের (লায়লাতুল কদর) নামাজ আদায় শেষে মসজিদ চত্বরে বিক্ষোভ শুরু করেন সেখানে উপস্থিত ফিলিস্তিনি মুসল্লিরা।  তাদের ওপর হামলা চালায় ইসরাইলি আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

আজকের জনপ্রিয়:
>> আয়ু কমে যাওয়ার ৭ কারণ
>> সন্তানদের যে আমলের অভ্যাস করানো জরুরি
>> ছেলেদের যে বিষয়গুলো মেয়েরা সবার আগে খেয়াল করে


Share:





জুমবাংলানিউজ/এইচএম