পরিকল্পনামন্ত্রীর ফোন ছিনতাই হওয়া ফোন নিয়ে চমকপ্রদ তথ্য

রাজধানীর বিজয় সরণি থেকে ৩০ মে সন্ধ্যায় পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নানের মোবাইল ফোন ছিনতাই হয়। এরপর দীর্ঘ ২১ দিনেও মোবাইলটি উদ্ধার হয়নি। এমনকি গ্রেপ্তারও করা যায়নি ছিনতাইকারীকে। তবে মোবাইলটি বেশ কয়েকবার বিক্রির তথ্য পেয়েছে পুলিশ।

তদন্ত সংশ্লিষ্টরা বলছেন, পরিকল্পনামন্ত্রীর মোবাইলটি প্রথম ছিনতাইকারী একজনের কাছে ১০ হাজার টাকায় বিক্রি করে। পরে তার কাছ থেকে আরেকজন ২৫-৩০ হাজার টাকায় কিনেছে। এরপর মোবাইলটি এখন পর্যন্ত সিমকার্ড দিয়ে চালু করা হয়নি। তাই ফোনটির অবস্থান শনাক্ত করতে পারছে না পুলিশ।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক (এসআই) জিএম ফরিদুল আলম বলছেন, আমরা বেশ কয়েকটি আইফোন উদ্ধার করেছি। কিন্তু এর একটিও মন্ত্রীর নয়। এখন আমাদের ভরসা ছিনতাইকারীকে গ্রেপ্তার করা। তারপর মোবাইলটি শেষ কার হাতে গেছে তা হয়তো নিশ্চিত হওয়া যাবে। তাকে গ্রেপ্তারের জন্য আমাদের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

এর আগে গত ৪ জুন ডিএমপির মিরপুর বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) আ স ম মাহতাব উদ্দিন বলেছিলেন, পরিকল্পনামন্ত্রীর মোবাইল ছিনতাইয়ের ঘটনায় একজনকে শনাক্ত করা হয়েছে। তার নাম-ঠিকানা ও পরিচয় পুলিশের হাতে এসেছে। তাকে এখন গ্রেপ্তারের অভিযান চলছে। ছিনতাইকারী রাজধানীর বিজয় সরণি এলাকায় ভাসমান অবস্থায় জীবন যাপন করতেন। সেই এলাকার উড়োজাহাজের ভাস্কর্যের নিচে প্রতি রাতে ঘুমাতেন।

উল্লেখ্য, রোববার (৩০ মে) অফিসের কাজ সেরে বাসায় ফিরছিলেন মন্ত্রী এম এ মান্নান। মন্ত্রীর গাড়িটি বিজয় সরণির ট্রাফিক সিগন্যাল এসে দাঁড়াালে তিনি নিজের ব্যবহৃত মোবাইলে (আইফোন) কথা বলছিলেন। তবে এ সময় গাড়ির জানালা খোলা ছিল। তখনই এক ছিনতাইকারী তার হাত থেকে মোবাইলটি ‘ছোঁ’ মেরে কেড়ে নিয়ে পালিয়ে যায়।

পরে একই দিনে ডিএমপির কাফরুল থানায় মন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারী একটি মামলা করেন।


জুমবাংলানিউজ/ জিজি