অপরাধ-দুর্নীতি

পিতার গো’পনাঙ্গ কাটলো মেয়ে

হাত, পা ও গো’পনাঙ্গ কেটে বাবাকে হত্যা করলো পালিত মেয়ে। পুলিশকে তরুণী জানিয়েছে, যৌন হেনস্থার কারণে এ হ’ত্যাকাণ্ড ঘটেছে।

অভিযুক্ত তরুণীর নাম কুমারি আরাধ্যা জিতেন্দ্র পাটিল ওরফে রিয়া (১৯)। তার ১৬ বছরের এক কিশোরকেও গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গত ২৭ নভেম্বর ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের মুম্বাইয়ে। শনিবার গ্রেপ্তারের পর পুলিশের কাছে তরুণী স্বীকার করেছে, তিনি ওই ব্যক্তির দত্তক সন্তান। বেনেট রেবেলোকে খুন করে দুজনে মিলে। মুম্বাইয়ের ভাকোলা এলাকায় দ্বারকায় একটি ফ্ল্যাটে ছুরি ও বাঁশ দিয়ে পিটিয়ে মারে ৫৯ বছরের ব্যক্তিকে।

ছুরি দিয়ে কোপানোর পরেও বেঁচে ছিলেন বেনেট। একেবারে শেষ করতে মশা মারার তেল স্প্রে করে তারা ওই ব্যক্তির শরীরে৷ তারপর দেহ পিস পিস করে কাটে তারা। বাবাকে খুন করে দেহ পিস পিস করে কেটে স্যুটকেসে ভরেছে। কিছু দেহাংশ ভরেছে ব্যাগে।

কেন খুন? পুলিশকে রিয়া অভিযোগ করেছে, তাকে তার বাবা যৌ’ন হেনস্থা করত দীর্ঘ দিন ধরে। কারণ, নাবালকের সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক মানতে চাননি বাবা। তাই খুন করেছে। তারপর দেহ ও গো’পনাঙ্গ কুচি কুচি করে কেটে স্যুটকেসে ভরে তারা মিঠি নদীতে ফেলে দেয়।

সোয়েটার দিয়ে তারা দেহাংশ গুলি মুড়ে দেয়। কুর্লায় একটি দোকানে সোয়েটারটি সেলাই করা হয়।

ডিসিপি শাহজি উমাপ বলেন, আমরা


জুমবাংলানিউজ/ জিএলজি




আপনি আরও যা পড়তে পারেন


সর্বশেষ সংবাদ