in

পুলিশের নিয়োগ হবে নতুন নীতিমালায় : আইজিপি

জুমবাংলা ডেস্ক : পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ বলেছেন, অবৈধ অস্ত্র নিয়ন্ত্রণ আর বৈধ অস্ত্রের অবৈধ ব্যবহার বন্ধ করতে হবে। বর্তমানে দেশের বিভিন্ন স্থানে মেগাপ্রজেক্ট বাস্তবায়িত হচ্ছে। এসব প্রজেক্টে অনেক বিদেশি নাগরিক কাজ করছেন। তাঁদের যথাযথ নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

আজ মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) তিন দিনব্যাপী অপরাধ পর্যালোচনাসভার শেষ মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের উদ্দেশে সমাপনী বক্তৃতায় আইজিপি এসব কথা বলেন। পুলিশ সদর দপ্তরে হল অব ইন্টেগ্রিটিতে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আইজিপি বলেন, ‘সোশ্যাল মিডিয়া নিয়মিত মনিটর করতে হবে, যাতে কোনো সাধারণ নাগরিক সাইবার ক্রাইমের শিকার না হন।’ তিনি পুলিশ কর্মকর্তা ও সদস্যদের সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারের ক্ষেত্রে সরকারের ও পুলিশ বাহিনীর অনুশাসন মেনে চলার নির্দেশ দেন।
আইজিপি বলেন, ‘নতুন নীতিমালায় পুলিশ কনস্টেবল নিয়োগ করা হচ্ছে। কনস্টেবল নিয়োগ সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে হবে। প্রধানমন্ত্রীর সুস্পষ্ট নির্দেশনায় আমরা দেশ ও জনগণের কল্যাণে দুর্নীতিমুক্ত পুলিশ বাহিনী গড়ে তুলতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। পুলিশের কোনো সদস্যের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ প্রমাণিত হলে তাঁকে ছাড় দেওয়া হবে না।’

পুলিশের কোনো সদস্য মাদকের সঙ্গে কোনো ধরনের যুক্ত থাকতে পারবে না জানিয়ে আইজিপি বলেন, ‘কোনো পুলিশ সদস্যের মাদক গ্রহণ, মাদক কারবার বা মাদক কারবারির সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে প্রমাণিত হলে তাঁর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। কারো যদি মাদকের সঙ্গে কোনো ধরনের সংশ্লিষ্টতা থাকে, তাহলে তাঁকে বেরিয়ে আসতে হবে।’

পুলিশপ্রধান বলেন, একজন পুলিশ সদস্য হিসেবে এমন কোনো কাজ করা যাবে না, যাতে পুলিশবাহিনী ক্ষতিগ্রস্ত হয়, দেশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়, দেশের জনগণের ক্ষতি হয়।

সাধারণ মানুষের প্রতি অমানবিক আচরণ করা থেকে বিরত থাকতে হবে জানিয়ে আইজিপি বলেন, এ জন্য প্রয়োজন দৃষ্টিভঙ্গি বদলানো। আর এটা এক্ষণই করা যায়। এতে সময় ও আর্থিক বিনিয়োগ কোনোটারই প্রয়োজন হয় না।

তিনি বলেন, ‘মামলা তদন্তের মান আরো বাড়াতে হবে। তদন্তের প্রতি অত্যন্ত মনোযোগী হতে এবং তদারকি বাড়াতে তিনি মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন।’

পুলিশকে একটি সুশৃঙ্খল বাহিনী উল্লেখ করে আইজিপি বলেন, ‘বাহিনীর শৃঙ্খলা এবং কল্যাণ এক বিষয় নয়। শৃঙ্খলাকে কল্যাণের সঙ্গে মিলিয়ে ফেলা যাবে না। বাহিনীর শৃঙ্খলা রক্ষার বিষয়ে কোনো ধরনের আপস করা যাবে না। কোনো পুলিশ সদস্য শৃঙ্খলা ভঙ্গ করলে তাঁর বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। পাশাপাশি তাঁদের কল্যাণ নিশ্চিত করতেও আমরা যথেষ্ট সচেষ্ট রয়েছি।’

পুলিশ কর্মকর্তাদের উদ্দেশে আইজিপি বলেন, ‘শুধু চাকরি করলে হবে না। চাকরিতে প্রাইড নিয়ে আসতে হবে। এ জন্য মানসিকতা ও মনস্তাত্ত্বিক পরিবর্তন আনতে হবে। চাকরির প্রতি ভালোবাসা থাকতে হবে, তাহলেই আমরা এগিয়ে যাব।’

অনলাইনে খুব সহজে টাকা ইনকাম করার উপায়