আন্তর্জাতিক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি স্লাইডার

প্রাণের সন্ধানে মঙ্গলের পথে নাসার ‘পার্সিভিয়ারেন্স’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: সফল ভাবে নতুন রকেট উৎক্ষেপণ করল নাসা। সব ঠিক থাকলে নতুন মহাকাশযান ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে মঙ্গলে পৌঁছবে। খবর ডয়চে ভেলের।

কিউরিওসিটির পর এ বার পার্সিভিয়ারেন্স। মঙ্গল জুড়ে ঘুরে বেড়াবে নাসার তৈরি এসইউভির সমান এই ১২ চাকার রোবট। খুঁজে দেখবে মঙ্গলগ্রহে প্রাগৈতিহাসিক কালে প্রাণের লক্ষণ ছিল কি না। শুধু রোবটই নয়, একই সঙ্গে মঙ্গলে একটি ছোট্ট হেলিকপ্টার পাঠিয়েছে নাসা। এই প্রথম মঙ্গলের আবহাওয়ায় হেলিকপ্টার ওড়ানোর চেষ্টা হবে।

মার্কিন সময় সকাল ৭টা ৫০ মিনিটে ফ্লোরিডার মহাকাশ কেন্দ্র থেকে নতুন এই অভিযান শুরু করল নাসা। তবে খুব সহজ ছিল না অভিযানের প্রস্তুতি পর্ব। নাসার কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, পার্সিভিয়ারেন্স তৈরির কাজ যখন পুরো দমে চলছে, সে সময়েই অ্যামেরিকায় করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হয়। প্রকল্পটির সঙ্গে যাঁরা যুক্ত ছিলেন, তাঁদের অনেকেই আটকে পড়েন বাড়িতে। তা সত্ত্বেও ঠিক সময়ে প্রকল্প শেষ করার অঙ্গিকার করেন বিজ্ঞানীরা। করোনাকে উপেক্ষা করেই তাঁরা কাজ চালিয়ে যান।

বস্তুত, নাসার এক আধিকারিক সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, এর আগে বহু কঠিন সময়ে্ নাসা মহাকাশ গবেষণার কাজ করেছে। সাফল্যও এসেছে। তাঁদের বিশ্বাস বর্তমান কঠিন সময়েও তাঁদের প্রকল্প সফল হবে। তবে সমস্যার এখানেই শেষ নয়। রকেট উৎক্ষেপনের জন্য যে সময় নির্ধারিত হয়েছিল, শেষ মুহূর্তে জানা যায় সে সময়েই ভূমিকম্প হবে। রিক্টার স্কেলে যার মাত্রা চার দশমিক দুই। ফলে পূর্ব নির্ধারিত সময়ের কয়েক মিনিট পরে রকেট উৎক্ষেপন করা হয়।


অ্যাটলাস রকেটে করে পার্সিভিয়ারেন্স এবং হেলিকপ্টার মঙ্গলে পাঠিয়েছে নাসা। সব ঠিক ঠাক থাকলে ২০১২১ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলে পৌঁছবে রকেট। তার পরেই কাজ শুরু করে দেবে পার্সিভিয়ারেন্স। ১৯টি ক্যামেরা এবং দুইটি অত্যন্ত উন্নতমানের মাইকের সাহায্যে মঙ্গলে প্রাগৈতিহাসিক প্রাণের সন্ধান করবে। নাসার দাবি, এই প্রথম মঙ্গল থেকে শব্দ সংগ্রহ করা হবে। এর আগে সেখানে মাইক পাঠানো হয়নি।

বস্তুত পার্সিভিয়ারেন্স একা নয়, ২০২১ সালে সব মিলিয়ে তিনটি স্পেসক্রাফট থাকবে মঙ্গলে। ২০১২ সালে নাসার পাঠানো কিউরিওসিটি এখনও কাজ চালিয়ে যাচ্ছে মঙ্গলে। লাল গ্রহে ২৩ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করেছে এই যানটি। অন্যদিকে গত সপ্তাহেই চীন প্রথম মঙ্গলে রকেট পাঠিয়েছে। ২০২১ সালের মে মাসের মধ্যে তারও মঙ্গলে পৌঁছে যাওয়ার কথা।

বিজ্ঞানীদের বক্তব্য, বহু কোটি বছর আগে মঙ্গলের আবহাওয়া এমন ছিল না। সেখানে বড় বড় হ্রদ ছিল। নদী ছিল। এবং যেহেতু জল ছিল, ফলে সেখানে প্রাণও ছিল বলে তাঁদের ধারণা। নতুন মহাকাশযানের কাজই হবে বহু কোটি বছর আগের সেই প্রাণের সন্ধান। বিজ্ঞানীদের বক্তব্য, এখনও সেই প্রাণের সন্ধান পাওয়া সম্ভব।

হেলিকপ্টার নিয়েও খুবই উত্তেজিত হয়ে আছেন নাসার বিজ্ঞানীরা। মঙ্গলের বায়ুমণ্ডল পৃথিবীর মতো নয়। ফলে সেখানে আদৌ হেলিকপ্টার ওড়ানো সম্ভব হবে কি না, তা নিয়ে সংশয় আছে। তবে বিজ্ঞানীদের বক্তব্য, মঙ্গলের আবহাওয়ার কথা মাথায় রেখেই হেলিকপ্টারটি তৈরি করা হয়েছে। যদি তা ওড়ানো যায়, তাহলে এক ঐতিহাসিক ঘটনা ঘটবে।


যাদের বাচ্চা আছে, এই এক গেইমে আপনার বাচ্চার লেখাপড়া শুরু এবং শেষ হবে খারাপ গেইমের প্রতি আসক্তিও।ডাউনলোডকরুন : http://bit.ly/2FQWuTP


আরও পড়ুন

চীনের ‘বুনিয়া’ ভাইরাস নিয়ে বড় দুঃসংবাদ!

Saiful Islam

চোরাই পথে ভারতে নেয়ার সময় ১২৬ কেজি বাংলাদেশি ইলিশ জব্দ

Saiful Islam

ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ছিলেন বঙ্গবন্ধুর বিশ্বস্ত সহচর, সংগ্রামের সহযোদ্ধা: প্রধানমন্ত্রী

Saiful Islam

বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৯০তম জন্মবার্ষিকী আজ

Saiful Islam

মাহাথিরের নতুন রাজনৈতিক দল গঠনের ঘোষণা

Saiful Islam

ভারতে বিমান দুর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৫

Saiful Islam