গাজীপুর ঢাকা বিভাগীয় সংবাদ

ফ্ল্যাট কেনার স্বপ্ন পূরণে অপহরণ করে কিডনি বিক্রির হুমকি

জুমবাংলা ডেস্ক : ভাড়াটিয়া সেজে শনিবার (১৮ জানুয়ারি) সকালে গাজীপুরের শরিফপুর এলাকার মো. আশরাফ আলী নামে এক ব্যক্তির বাসায় যান চারজন। ভাড়া নিয়ে কথাবার্তার এক ফাঁকে ঘুমের ওষুধ মিশ্রিত জুস খাইয়ে বাসার সবাইকে অজ্ঞান করে ওই বাসা থেকে ১৬ মাস বয়সী এক শিশুকে অপহরণ করে নিয়ে যায় তারা। সঙ্গে নগদ টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার লুট করেন। ওই শিশুর মুক্তিপণ হিসাবে ফোনে ওই পরিবারের কাছে পরে ২০ লাখ টাকাও দাবি করা হয়। টাকা না দিলে শিশুটির কিডনি বিক্রি করে হত্যার হুমকিও দেয় তারা।

বিষয়টি পরিবারের পক্ষ থেকে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নকে (র‌্যাব) জানালে তাদের একটি টিম আরাফ নামের ওই শিশুকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে। সেই সঙ্গে চার অপহরণকারীকেও আটক করে তারা। আটককৃতরা হলেন- মোসা. জেরিন ইশরাত জুলি (২২), তারিন নুশরাত তুলি (১৬), আমিনুল ইসলাম (২৯) ও সুমন (৩০)।

রোববার দুপুরে র‌্যাব-১ কার‌্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে লেফটেন্যান্ট কর্নেল (সিপিসি) আব্দুল্লাহ আল মামুন এসব তথ্য জানান।

তিনি বলেন, র‌্যাব-১ এর একটি দল শনিবার (১৮ জানুয়ারি) রাত ১০টার দিকে গাজীপুরের সাইনবোর্ড এলাকা থেকে অপহরণকারী চক্রের দুই নারী সদস্যকে আটক করে। তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে সাইনবোর্ড এলাকার একটি ফ্ল্যাটের গোপন কক্ষ থেকে মুমূর্ষু অবস্থায় অপহৃত শিশু শাহরিয়ার ইসলাম আরাফকে উদ্ধার করা হয়। এসময় অপহরণকারী চক্রের আরও দুই সদস্য আমিনুল ও সুমনকে গ্রেফতার করা হয়।

ঘটনার বর্ণণা দিয়ে আব্দুল্লাহ আল মামুন আরও বলেন, গত ১৬ জানুয়ারি গাজীপুরের শরিফপুর এলাকার আশরাফ আলীর বাসা ভাড়া নিতে যান জেরিন ইশরাত জুলি। পরে গত শনিবার (১৮ জানুয়ারি) সকাল ৮টায় জুলি তার ছোট বোন তুলিকে নিয়ে পরিকল্পিতভাবে ওই বাসায় ফের হাজির হন। বাসা ভাড়ার অগ্রিম টাকা দেয়ার আলাপচারিতার ফাঁকে আশরাফ আলীসহ পরিবারের সবাইকে ঘুমের ওষুধ মিশ্রিত জুস খাওয়ান তারা।

ওই জুস খেয়ে পরিবারটির সবাই অজ্ঞান হয়ে পড়লে জুলি ও তুলি ১৬ মাস বয়সী শিশু আরাফকে অপহরণ করে। এসময় তারা বাসার নগদ টাকা, স্বর্ণালঙ্কার ও মোবাইল ফোন সঙ্গে নিয়ে পালিয়ে যান।

পরে পাশের বাসার লোকজন তাদের হাসপাতালে ভর্তি করেন।

অপহরণকারীরা আশরাফ আলীর বাসা থেকে চুরি করা মোবাইল ফোন দিয়ে অপহরণের কথা জানিয়ে ২০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করা হয়। অন্যথায় তাদের শিশু সন্তানের কিডনি বিক্রির পর হত্যার হুমকিও দেয় তারা।

র‌্যাব বলছে, যাদের আটক করা হয়েছে তারা একটি সংঘবদ্ধ অপহরণকারী চক্রের সদস্য। দীর্ঘদিন তারা গাজীপুরের বিভিন্ন এলাকায় অপহরণ, চুরি, ছিনতাইসহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কাজের সাথে জড়িত। তারা চারজনই একটি তৈরি পোশাক কারাখানায় কাজ করেন। তাদের স্বপ্ন ছিল যেকোনো উপায়ে গাজীপুর শহরে একটি ফ্ল্যাট বাসা কিনে সুন্দরভাবে জীবনযাপন করবে। এই স্বপ্ন পূরণ করতেই তারা অপহরণ করেছে বলে স্বীকার করে।

এ বিষয়ে গাজীপুরের গাছা থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।




জুমবাংলানিউজ/এসআর


আপনি আরও যা পড়তে পারেন


rocket

সর্বশেষ সংবাদ