খেলাধুলা ফুটবল

বাংলাদেশে এসে আবেগাপ্লুত বিশ্বকাপে ব্রাজিলের গোলকিপার জুলিও সিজার

ছবি সংগৃহীত

স্পোর্টস ডেস্ক : ধানমন্ডিতে বঙ্গবন্ধু জাদুঘর পরিদর্শন, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ, স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের খেলোয়াড়দের সঙ্গে সাক্ষাৎ, মহিলা ফুটবল দলের সঙ্গে সময় কাটানো মিলিয়ে ব্যস্ত একটি দিন কাটালেন জুলিও সিজার। প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে আসা ব্রাজিলের সাবেক গোলরক্ষক অনেক বিষয় নিয়ে কথা বলতে গিয়ে হয়ে পড়লেন আবেগাক্রান্ত।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে সিজারকে এনেছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন। সৌজন্য সফরে এসে গণমাধ্যমের সঙ্গে বর্ণিল ক্যারিয়ার, ঘরের মাঠে বিশ্বকাপে জার্মানির বিপক্ষে বিধ্বস্ত হওয়া সেই ম্যাচসহ আরও অনেক বিষয় নিয়ে কথা বললেন ইন্টার মিলানের হয়ে ট্রেবল জেতা এই গোলরক্ষক।

“এখানকার পরিস্থিতি দেখে আমার মনে পড়ছে ব্রাজিলের হয়ে খেলা সময়ের কথা। প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে আসার সুযোগ দেওয়ায় বাফুফে সভাপতিকে ধন্যবাদ। দুর্ভাগ্যজনকভাবে আমি মাত্র একদিন এখানে থাকছি। আরও কিছু সময় থেকে এই দেশটাকে জানতে পারলে ভালো লাগত।”

“এ দেশের জাতির পিতার বাড়ি পরিদর্শনের সুযোগ পেয়েছি। এটা খুবই আবেগী সফর ছিল। আসার আগে আমি কিছুই জানতাম না, কিন্তু এখন এই দেশটি সম্পর্কে আমি অনেক কিছু জানি। বাংলাদেশের জাতির পিতার জন্ম শতবার্ষিকী সামনে রেখে এখানে আসতে পেরে আমি খুশি।”“স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের খেলোয়াড়দের সঙ্গে দেখা করার সুযোগ পেয়েছি। তাদের বলেছি, আপনারাই প্রকৃত ফুটবলার। কেননা, আমি কল্পনা করতে পারি যুদ্ধের সময় দেশের জন্য ফুটবল খেলা সহজ নয়। এটা করতে হলে আপনাকে খুবই দৃঢ় মনোবলের হতে হবে। তারা এখনও শক্তিশালী আছে! এটা আমাদের জন্য ভালো অভিজ্ঞতা, কেননা পরিবার, আত্মীয়, বন্ধু ও সাবেক ফুটবলারদের সঙ্গে আমি এই স্মৃতি ভাগাভাগি করতে পারব।”

২০১৪ সালে নিজেদের মাঠে বিশ্বকাপের সেমি-ফাইনালে জার্মানির কাছে ৭-১ গোলে হারের পর ‘কেউ কোনো কথা বলেনি’ বলেও জানালেন সিজার। প্রশংসা করলেন লিওনেল মেসি ও ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর। নিজের কাছে সেরা খেলোয়াড় হিসেবে বললেন রোনালদিনিয়োর নাম।

যাদের বাচ্চা আছে, এই এক গেইমে আপনার বাচ্চার লেখাপড়া শুরু এবং শেষ হবে খারাপ গেইমের প্রতি আসক্তিও। ডাউনলোডকরুন : http://bit.ly/2FQWuTP




জুমবাংলানিউজ/এসএস


আপনি আরও যা পড়তে পারেন


rocket

সর্বশেষ সংবাদ