বৃদ্ধ বাবা-মাকে পিটিয়ে রাস্তায় ফেলে রাখলেন ছেলে!

জুমবাংলা ডেস্ক : ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলায় জমিজমার বিরোধ নিয়ে বাবা ও মাকে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ উঠেছে ছেলে ও নাতিদের বিরুদ্ধে। গতকাল শুক্রবার সকালে উপজেলার হাজীপুর ইউনিয়নে দেহানাগড় ডাঙ্গীপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

আহত আজিম উদ্দিন (৯০) ও কুলসুম বেগম (৭০) পীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। অপরদিকে অভিযুক্ত বড় ছেলে কফিল উদ্দিন, তার ছেলে মানিক ও মুক্তাও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

আহত আজিম উদ্দিনের ছোট ছেলে রফিক ইসলাম বলেন, দীর্ঘ দিন ধরে জমিজমা নিয়ে বড় ভাই কফিল উদ্দিনের সঙ্গে বাবা ও মায়ের বিরোধ চলছিল। সেই বিরোধকে কেন্দ্র করে গতকাল সকালে বড় ভাই কফিল উদ্দিন ও তার দুই ছেলে মানিক ও মুক্তা জোর করে জমি দখল করার চেষ্টা করে। এ সময় বাবা আজিম উদ্দিন ও মা কুলসুম বেগম বাধা দেন। এরপর কফিল উদ্দিন ও তার দুই ছেলে মানিক ও মুক্তা বাবা-মাকে বেধরক লাঠিপেটা করে আহত করেন। এ ঘটনায় তিনি বিচার দাবি করেন।

এদিকে, অভিযুক্ত কফিল উদ্দিন অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘সকালের দিকে জমিতে আমি আমন ধানের চারা রোপন করতে যাই। এ সময় আমার বাবা ও মা জমিতে আসে এবং পেছন দিক থেকে ছোট ভাই রফিক ও তার স্ত্রী আমাদের বাধা দিলে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। একপর্যায়ে তারা সবাই মিলে আমাকে ও আমার ছেলে মানিক ও মুক্তাকে মারপিট করে আহত করেছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমার মাথায় ৮টি সেলাই রয়েছে ও আমার ছেলে মানিকের হাত ভেঙে গেছে। আমরা হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছি। এখন উল্টো তারা আমাদের বিরুদ্ধেই অভিযোগ করছে।’

হাজীপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ‘অনেক দিন ধরেই জমিজমা নিয়ে আজিম উদ্দিন ও তার সন্তানদের মধ্যে বিরোধ চলছিল। বিষয়টি সমাধানের জন্য চেষ্টা করছিলাম। কিন্তু করোনায় লকডাউনের কারণে বিষয়টি সমাধান করা হয়নি।’

এলাকাবাসীর বরাত দিয়ে পীরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার রায় বলেন, দীর্ঘ দিন ধরে বৃদ্ধ আজিম উদ্দিনের জমিজমা নিয়ে তার সন্তানদের মধ্যে বিরোধ চলছিল। এ ছাড়া এসব জমি নিয়ে আদালতে মামলা চলছে। গতকাল সকালের জমিজমাকে কেন্দ্র করে কফিল উদ্দিন ও রফিকের মধ্যে মারপিটের ঘটনা ঘটে। এ সময় হয়তো বৃদ্ধ বাবা-মা বাধা দিতে গেলে তারাও আহত হয়েছে।

ওসি আরও বলেন, এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কেউ লিখিত অভিযোগ দেয়নি। ইতিমধ্যে উভয় পক্ষকে থানায় অভিযোগ দিতে বলা হয়েছে। অভিযোগ পেলে তদন্তসাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


জুমবাংলানিউজ/এসআর