Views: 11

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

মহাকাশে ভিড় বাড়ছে ক্ষুদ্র স্যাটেলাইটের!


তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক: স্যাটেলাইট ছাড়া আজকের জীবনযাত্রা কল্পনা করা যায় না৷ বিশাল আকারের শক্তিশালী কৃত্রিম উপগ্রহের পাশাপাশি ক্ষুদ্র অথচ দক্ষ স্যাটেলাইট একাধিক ক্ষেত্রে বিপ্লব আনতে পারে বলে ধরে নেওয়া হচ্ছে৷ খবর ডয়চে ভেলের।

মহাকাশপ্রযুক্তি ও মহাকাশে উড়াল আজ আধুনিক জীবনের সঙ্গে অঙ্গাঙ্গীভাবে জড়িয়ে পড়েছে৷ বিদ্যুৎ সংযোগের মতোই অপরিহার্য হয়ে পড়েছে বলা চলে৷ এই ক্ষেত্র নতুন ও ভবিষ্যৎ প্রযুক্তির চাবিকাঠি৷

ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রায় ১০ শতাংশ অর্থনৈতিক কার্যকলাপ ইতোমধ্যেই স্যাটেলাইট ন্যাভিগেশনের উপর নির্ভর করে৷

২০১৪ সালে ইইউ কোপার্নিকাস কর্মসূচি চালু করে৷ জনগণের অর্থে চালিত এই উদ্যোগের আওতায় একাধিক স্যাটেলাইট নির্দিষ্ট কক্ষপথ থেকে পৃথিবী পর্যবেক্ষণ করছে৷ স্যাটেলাইট থেকে পাঠানো তথ্য নতুন অ্যাপ্লিকেশন সৃষ্টির কাজে লাগানো হচ্ছে৷ যেমন জাহাজে জ্বালানীর সাশ্রয় বাড়ানোর সফটওয়্যার তৈরি করা হচ্ছে৷ এই প্রযুক্তির দৌলতে কর্মসংস্থানও বাড়ছে৷

স্যাটেলাইট থেকে পাঠানো তথ্য কাজে লাগিয়ে বাজারে অনেক পণ্য তৈরি করা যেতে পারে৷ রিমোট সেন্সিং সলিউশনস মিউনিখ-ভিত্তিক একটি কোম্পানি, যেটি পরিবেশের উপর নজর রাখার কাজে দক্ষ৷ এই শিল্পক্ষেত্রে বেশি মুনাফার আশা করা যায় না৷

তবে কোপার্নিকাস প্রকল্পের আওতায় সব তথ্য বিনামূল্যে পাওয়া যায় বলে আয় কিছুটা বেড়েছে৷ এই কোম্পানি সেই ডেটা ব্যবহার করে মূল্যবান তথ্য সৃষ্টি করছে৷


আরএসএস কোম্পানির প্রধান ফ্লোরিয়ান সিগার্ট বলেন, ডেটা যখন বিনামূল্যে অথবা কম দামে পাওয়া যায়, তখন তথ্য সৃষ্টির গোটা প্রক্রিয়ার ব্যয়ও কমে যায়৷ মানুষের কেনার আগ্রহও বেড়ে যায়৷

কোম্পানির গ্রাহকদের মধ্যে ডাব্লিউডাব্লিউএফ-এর মতো প্রকৃতি সংরক্ষণ গোষ্ঠী এবং বেশ কিছু সরকারি প্রতিষ্ঠানও রয়েছে৷ গাছপালার উপর জমির ব্যবহার ও জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব পর্যবেক্ষণ করা কোম্পানির অন্যতম কাজ৷ স্যাটেলাইট বিস্তীর্ণ এলাকার ছবি তুলতে পারে৷ প্রতি মৌসুমে সাহেল এলাকার গাছপালার উপর নজর রাখা যায়৷

ফ্লোরিয়ান সিগার্ট বলেন, মহাকাশচারীরা বলেন, একবার আইএসএস-এ থাকার পর পৃথিবীর সঙ্গে তাদের ভিন্ন ধরনের সম্পর্ক গড়ে ওঠে৷ স্যাটেলাইট থেকেও প্রায় একই রকম দৃশ্য দেখা যায়৷ আফ্রিকা, দক্ষিণ অ্যামেরিকায় কী হচ্ছে, আমরা তা দেখতে পাই৷ দূর থেকে পর্যবেক্ষণ করলে আমরা আরও স্পষ্টভাবে সংযোগ বুঝতে পারি৷

কোপার্নিকাস প্রকল্পের স্যাটেলাইটগুলি খুব বড় ও ভারি৷ ওজন কয়েক টন পর্যন্ত হতে পারে৷ তৈরি করতে অনেক বছর সময় লাগে৷ প্রত্যেকটি স্যাটেলাইট অনবদ্য৷ অনেক যন্ত্রাংশ বা উপাদান বিশেষভাবে তৈরি করতে হয়৷ সে কারণে এমন স্যাটেলাইট বেশ দামী হয়৷

একটি স্যাটেলাইটের মূল্য কয়েক কোটি ইউরো হতে পারে৷ সে তুলনায় মিনি স্যাটেলাইটের দাম অনেক কম৷ আকারে ওয়াইনের বোতলের মতো ছোট হতে পারে৷

ছোট আকারের স্যাটেলাইটের আবির্ভাবের ফলে নতুন এক যুগের সূচনা হয়েছে৷ দাম অনেক কম হলেও সেগুলি গুরুত্বপূর্ণ পরিষেবা দিতে পারে৷

সান ফ্রানসিস্কো শহরের প্ল্যানেট ল্যাব কোম্পানি ইতোমধ্যেই মিনি স্যাটেলাইটের সাহায্যে পৃথিবীর ছবি তুলছে৷

গোটা ইউরোপে ছাত্রছাত্রীরা এমন ছোট ডিভাইস তৈরির কাজ শিখছেন৷ ন্যানো স্যাটেলাইট এক ধরনের ছোট স্যাটেলাইট৷ বার্লিনের প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক টিম বেশি পরিমাণ ডেটা ট্রান্সফার সম্ভব করতে চারটি এমন স্যাটেলাইট কাজে লাগাচ্ছে৷ দুই বছর আগে সেগুলি কক্ষপথে পাঠানো হয়েছিল৷ পৃথিবীর উপর নজর রাখার কাজে ও বিশ্বজুড়ে যোগাযোগের ক্ষেত্রে ছোট স্যাটেলাইট বিপ্লব আনতে পারে৷


যাদের বাচ্চা আছে, এই এক গেইমে আপনার বাচ্চার লেখাপড়া শুরু এবং শেষ হবে খারাপ গেইমের প্রতি আসক্তিও।ডাউনলোডকরুন : https://play.google.com/store/apps/details?id=com.zoombox.kidschool



আরও পড়ুন

৫০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে বেশি গতিতে ঘুরছে পৃথিবী

Saiful Islam

বাংলাদেশে যেসব কারণে এত জনপ্রিয় ইমো

Mohammad Al Amin

চীনা দূতাবাসের পোস্ট মুছে দিল টুইটার

Saiful Islam

সৌরজগতের বৃহত্তম গিরিখাত

Shamim Reza

মহাকাশে ক্ষুদ্র স্যাটেলাইটের ভিড় বাড়ছে

azad

ফেসবুক-হোয়াটসঅ্যাপের বিরুদ্ধে তদন্ত করছে তুরস্ক

Shamim Reza