মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশীকে খুন করে পুঁতে রাখল আরেক বাংলাদেশী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : মালয়েশিয়ায় তর্ক-বিতর্কের জেরে কাঠ দিয়ে মাথায় আঘাত করে এক বাংলাদেশীকে হত্যার অভিযোগে আরেক বাংলাদেশীকে গ্রেফতার করেছে দেশটির পুলিশ। তারা দুজনেই একই রুমে বসবাস ও চাকরি করতেন বলে জানা গেছে। ময়নাতদন্তের জন্যে লাশ তুয়ানকু হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম জানায়, গতকাল বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় কুয়ালালামপুরের পাশের সেরেমবান প্রদেশে একটি নির্মাণাধীন ভবন থেকে নিহত বাংলাদেশীর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। হত্যার পর তার লাশ এখানেই পুঁতে রাখা হয়েছিল।

পুলিশ পলাতক অবস্থায় খুনি বাংলাদেশী ২৯ বছর বয়সী এক যুবককে গ্রেফতার করেছে। তবে পুলিশ নিহত বাংলাদেশী ও গ্রেফতার বাংলাদেশী খুনির নাম ঠিকানা প্রকাশ করেনি। লাশও পুলিশকে না জানিয়েই দাফন করা হয়েছিল। কিন্তু কর্মস্থলে দীর্ঘদিন অনুপস্থিত থাকায় নিয়োগকর্তা পুলিশকে খবর দেন। তারপরই খুনি পালিয়ে যান। তখন পুলিশের সন্দেহ হয়। তারপর পুলিশ অভিযান চালিয়ে খুনিকে গ্রেফতার করেছে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তিনি হত্যার কথা স্বীকার করেন।

সেরেম্বান থানার প্রধান সহকারী কমিশনার মোহাম্মদ সাইদ ইব্রাহিম বলেছেন, এখানকার তামান মুতিয়ারা গাল্লায় একটি নির্মাণ সাইট থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এবং এখানেই তাকে মাথায় কাঠ দিয়ে আঘাত করে খুন করা হয়।

তিনি বলেন, প্রাথমিক তদন্তের ভিত্তিতে জানা গেছে যে ৩০ বছর বয়সী নিহত ব্যক্তির গৃহবধূও সেখানে রয়েছেন। তবে পুলিশের কাছে খুনি স্বীকার করেছেন যে তিনি তার স্বদেশীকে হত্যা করেছেন। হত্যার পর যেখানে লাশ দাফন করা হয়েছে ওই জায়গাটিও শনাক্তকরণে তিনি পুলিশকে সহযোগিতা করছেন। এসময় যে কাঠের টুকরা দিয়ে তাকে হত্যা করা হয়েছে, ওই কাঠের টুকরাটি উদ্ধার করেছে পুলিশ।


জুমবাংলানিউজ/এসআর