in

মুরিদদের শত শত মামলা, যা বলছে রাজারবাগ দরবার


জুমবাংলা ডেস্ক : সাম্প্রতিক পরিস্থিতি নিয়ে বিবৃতি দিয়েছে রাজারবাগ দরবার শরীফ। বিবৃতিতে তাদের দাবি, সিআইডির একটি তদন্ত প্রতিবেদন এবং কয়েকটি মানববন্ধনকে কেন্দ্র করে গণমাধ্যমে রাজারবাগ দরবার শরীফের পীরের সম্পর্কে অপপ্রচার ও বানোয়াট তথ্য প্রচার করা হচ্ছে।

মঙ্গলবার রাজারবাগ দরবার শরীফের পক্ষে গণমাধ্যমে বিবৃতিটি পাঠান মুহম্মদ আরীফুর রহমান ও অ্যাডভোকেট মেজবাহ উদ্দিন সুমন।

বিবৃতিতে দাবি করা হয়, কোন মামলাবাজ সিন্ডিকেটের সাথে রাজারবাগ দরবার শরীফের পীরের বিন্দুমাত্র সম্পর্ক নেই। কারো বিরুদ্ধে মিথ্যা, ভুয়া, সাজানো বা হয়রানিমূলক মামলা তিনি নিজে কখনো করেননি এবং কাউকে দিয়েও কখনো করাননি।

‘৫ শতাধিক ব্যক্তির নামে ৮ শতাধিক মিথ্যা মামলা’ করা তো দূরের কথা, তিনি একটি মিথ্যা মামলা করেছেন বা করিয়েছেন, এমন প্রমাণ কেউ কখনও দেখাতে পারবে না।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, মামলা-হামলার ভয় বা কোন প্রকার প্রলোভন দেখিয়ে তিনি কারো থেকে জমি লিখে নেননি বা টাকা আদায়ও করেননি। অন্যায়ভাবে বা অবৈধপন্থায় তিনি কখনো ১ ইঞ্চি জমিও দখল করেননি কিংবা দখল করার জন্য চাপ প্রয়োগও করেননি।

সিআইডির তদন্ত প্রতিবেদন ‘চাপ প্রয়োগের’ দাবি করলেও তার সত্যতা প্রমাণে কোনরূপ প্রমাণ উপস্থাপন করতে পারেনি। সুতরাং সত্যতা যাচাই না করে গণমাধ্যমে রাজারবাগ দরবার শরীফ সম্পর্কে একতরফা ভুয়া, বানোয়াট ও মিথ্যা প্রচার না করা এবং এ ব্যাপারে সবাইকে সচেতন থাকার আহ্বান করা হলো।

এর আগে রাজারবাগ দরবার শরিফ ও এর পীর দিল্লুর রহমানের সম্পদ ও ব্যাংক হিসাব তদন্ত করতে দুর্নীতি দমন কমিশনকে (দুকক) নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে দরবার শরিফ বা পীরের অনুসারীদের কোনো অংশ জঙ্গি তৎপরতার সঙ্গে জড়িত কি-না, তা খতিয়ে দেখতে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটকেও নির্দেশ দেয়া হয়েছে।