in , ,

মেক্সিকোর সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরও শক্তিশালী করতে চায় বাংলাদেশ

জুমবাংলা ডেস্ক: দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক, বাণিজ্য ও বিনিয়োগের মতো বিষয়গুলো নিয়ে মেক্সিকোর সঙ্গে দ্বিপাক্ষিকভাবে আরও সম্পৃক্ততা বাড়াতে বাংলাদেশের আগ্রহের কথা দেশটিকে জানান পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম।

গতকাল (২৮ সেপ্টেম্বর) মেক্সিকো সিটিতে দেশটির আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের ডেপুটি মিনিস্টার মারিয়া ডে লা মোরের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম এ আগ্রহের কথা জানান।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, বৈঠকে দুই মন্ত্রী দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক, বাণিজ্য ও বিনিয়োগের মতো বিষয়গুলো উভয়পক্ষ কীভাবে আরও শক্তিশালী অবস্থানে নিয়ে যেতে পারে সে বিষয়ে আলাপ-আলোচনা করেন।

মেক্সিকোর সঙ্গে দ্বিপক্ষীয়ভাবে আরও সম্পৃক্ত হওয়ার জন্য বাংলাদেশের ইচ্ছার কথা প্রকাশ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, এটি ছিল মেক্সিকোতে বাংলাদেশের কোনো মন্ত্রীর প্রথম দ্বিপাক্ষিক সফর।

মেক্সিকোর উপমন্ত্রী বলেন, বাণিজ্য হচ্ছে কাছাকাছি আসার উপায়। আমি বাংলাদেশের প্রশংসা করছি। কেননা, সম্পর্ক বাড়ানোর জন্য বাংলাদেশ মেক্সিকোর সঙ্গে যোগাযোগ করেছে।

দুই মন্ত্রী দুই দেশের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক অর্থনৈতিক সম্পর্ক বৃদ্ধির সম্ভাবনাগুলো খোঁজার পাশাপাশি একে অপরকে আরও বেশি করে জানার ওপর গুরত্বআরোপ করেন। শাহরিয়ার আলম মেক্সিকান মন্ত্রীকে বাংলাদেশের উন্মুক্ত ও সুবিধাজনক বাণিজ্য এবং বিনিয়োগের পরিবেশের কথা তুলে ধরেন।

প্রতিমন্ত্রী প্রস্তাব করেন যে বর্তমানে দুই দেশের বাণিজ্য টার্গেট একশ কোটি ডলার নির্ধারণ করা হলে সেটি ব্যবসায়ীদের উৎসাহ দিতে সহায়ক হবে।

মন্ত্রী মারিয়া মেক্সিকো সিটিতে বাংলাদেশ দূতাবাস বা ব্যবসায়ী সম্প্রদায়ের যেকোনো সম্ভাব্য বাণিজ্য সংক্রান্ত সেমিনার বা প্রদর্শনীর জন্য ভেন্যু প্রস্তাব করেন।

বৈঠকে দুই মন্ত্রী মেক্সিকো সিটিতে বাংলাদেশ দূতাবাসের মাধ্যমে পারস্পরিক স্বার্থে যোগাযোগ বজায় রাখার বিষয়ে সম্মত হন।

এদিকে, বাংলাদেশ ও মেক্সিকোর মধ্যে বাণিজ্যের পরিমাণ বাড়াতে দু’দেশের শীর্ষ বাণিজ্যিক সংগঠন এফবিসিসিআই ও কোমসের মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে।

মঙ্গলবার পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমের উপস্থিতিতে মেক্সিকো সিটিতে বাংলাদেশের শীর্ষ বাণিজ্যিক সংগঠন এফবিসিসিআই ও মেক্সিকোর শীর্ষ বাণিজ্যিক সংগঠন কোমসের মধ্যে চুক্তি সই করা হয়।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে এফবিসিসিআই-এর পক্ষ থেকে মেক্সিকোন ব্যবসায়ীদের যৌথ চেম্বার গঠনের প্রস্তাব দেওয়া হয়। এতে রাজি হয় দেশটির শীর্ষ ব্যবসায়ীরা। তারই পরিপ্রেক্ষিতে প্রথমে বাংলাদেশ-মেক্সিকো বিজনেস কমিউনিটি গঠন করা হবে এবং আগামী নভেম্বরে মেক্সিকোর একটি ব্যবসায়ী প্রতিনিধি দল ঢাকা সফর করবে।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ সুযোগ ও সম্ভাবনার এবং এশিয়ার একটি অর্থনৈতিক শক্তিধর দেশ হিসেবে আবির্ভূত হচ্ছে। দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্যিক সম্পর্ক সম্প্রসারণের যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে। আমি আশা করছি, এ সমঝোতা স্মারক দুটি দেশের মধ্যে ব্যবসায়িক সম্পর্ক সম্প্রসারণের মাইলফলক হিসেবে কাজ করবে।

অনুষ্ঠানে মেক্সিকান বিজনেস কাউন্সিল ফর ফরেন ট্রেড, কোমসের কর্মকর্তারা, মেক্সিকো এবং বাংলাদেশের ব্যবসায়ী নেতারা ও দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আবিদা ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।