Views: 183

আন্তর্জাতিক

মোদির সমাবেশ এলাকাগুলোতে যতগুলো আসনে জিতলো বিজেপি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: পশ্চিমবঙ্গ দখলের লড়াইয়ে মোট ২২টি জনসভা করার কথা ছিল ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির। কিন্তু রাজ্যে করোনা সংক্রমণ বাড়তে থাকায় শেষ দুটি সফর বাতিল হয়। এর পরেও তিনি একদিনে চারটি সমাবেশ করবেন ঠিক করেছিলেন। কিন্তু শেষে তাও বাতিল করে ভার্চুয়াল মাধ্যমে বক্তব্য রাখেন। মালদহ, মুর্শিদাবাদ, সিউড়ি ও দক্ষিণ কলকাতার সমাবেশ বাতিল হলেও বাংলার জন্য অনেকটাই সময় দিয়েছেন মোদি। সেই সঙ্গে অমিত শাহ, জে পি নড্ডা, যোগী আদিত্যনাথরা মিলেও শ’খানেক সভা বা রোড-শো করেছেন।

মোদি যেখানে যেখানে গেলেন, সেখানে বিজেপি কেমন ফল করলো? উত্তর খুঁজতে গিয়ে যা দেখা যাচ্ছে তাতে সেই ফল মোটেও স্বস্তির নয় বিজেপির কাছে। হুগলির সাহাগঞ্জেও সভা ছিল মোদির। হুগলিতে রীতিমতো খারাপ ফল বিজেপির। অধিকাংশ আসনে হার শুধু নয়, মোদি যেখানে সভা করেছিলেন সেই আসনে লকেট চট্টোপাধ্যায় পরাজিত। ওই সমাবেশ মূলত ছিল হুগলি লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত বিধানসভা আসনগুলোর জন্য। যার সবকটিতেই ধরাশায়ী হয়েছে বিজেপি।

নীলবাড়ির লড়াইয়ে মোদির প্রচার পর্ব শুরু হয়ে যায় ভোটের নির্ঘণ্ট প্রকাশের অনেক আগেই। তার প্রথম সভাটি ছিল ৭ ফেব্রুয়ারি হলদিয়ায়। সেদিন মূলত সরকারি কর্মসূচিতে গিয়েছিলেন তিনি। একগুচ্ছ প্রকল্প সূচনার পাশাপাশি একেবারে শেষ মুহূর্তে ঠিক হয় তিনি একটি দলীয় কর্মসূচিতেও যোগ দেবেন। সে অনুযায়ী পাশাপাশি দুটি মঞ্চে দলীয় ও সরকারি সভা হয়। পূর্ব মেদিনীপুরের কাঁথিতে ২৪ মার্চ আরও একটি সভা করেন মোদি। হলদিয়া আসনে বিজেপি জয় পেলেও জেলার বাকি আসনে আশা পূরণ হয়নি। কাঁথি উত্তর ও দক্ষিণ দুই আসনেই পরাজিত বিজেপি। নন্দীগ্রামে শুভেন্দু অধিকারীকে অল্পের জন্য জেতাতে পারেন মোদি।

মার্চ মাসে মোট পাঁচ দফায় বাংলা সফর ছিল মোদির। শুরু ৭ মার্চ কলকাতার ব্রিগেডে সমাবেশে। এর পরে আর কলকাতায় যাননি মোদি। তবে একের পর এক সভায় প্রায় গোটা রাজ্যে প্রচার চালিয়েছেন। ১৮ মার্চ পুরুলিয়ায়, ২০ মার্চ খড়্গপুরে, ২১ মার্চ বাঁকুড়ায়। কলকাতায় অনেক আশা করেও বলা যায়, দাগ কাটতেই পারেনি গেরুয়া শিবির। গত লোকসভা নির্বাচনের নিরিখে এগিয়ে থাকা পুরুলিয়া, বাঁকুড়ায় বিজেপির ফল খুবই খারাপ। আর মোদির সভাস্থল বাঁকুড়া ও পুরুলিয়া আসনে জিতেছে তৃণমূল। তবে মোদির সমাবেশ করা খড়্গপুর সদর আসনে জয় পেয়েছে বিজেপি। যদিও পশ্চিম মেদিনীপুরের সার্বিক ফল বলছে তৃণমূল অনেক এগিয়ে।

১ এপ্রিল দক্ষিণ ২৪ পরগনার মথুরাপুর সভা করেন মোদি। কিন্তু এই জেলায় সেভাবে দাগই কাটতে পারেনি বিজেপি। গত লোকসভা নির্বাচনের নিরিখে এই জেলায় কোনও আসনেই এগিয়ে ছিল না বিজেপি। তৃণমূলের গড় দক্ষিণ ২৪ পরগনা জোড়াফুলের দখলেই রয়ে গেলো। হাওড়া জেলায় দুইটি সভা করেন মোদি। একটি উলুবেড়িয়ায় ও অপরটি ডুমুরজলায়। ফল বলছে উলুবেড়িয়া উত্তর ও দক্ষিণ দুই আসনেই জয়ী তৃণমূল। এই জেলায় তৃণমূল ছেড়ে বিজেপি-তে আসা সাবেক মন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের ওপর অনেক ভরসা ছিল গেরুয়া শিবিরের। কিন্তু তিনিও ডোমজুড় আসনে পরাজিত।

শিলিগুড়ি, কোচবিহারে হওয়া মোদির সভাগুলোকে বরং সফল বলা যেতে পারে। শিলিগুড়ি-সহ দার্জিলিং জেলায় সব আসনেই জয় পেয়েছে বিজেপি। অন্য দিকে কোচবিহার উত্তরে জিতলেও দক্ষিণে পরাজিত হয়েছে গেরুয়া শিবির। আর জেলায় ৯ আসনের মধ্যে বিজেপি জয় পেয়েছে ছয়টিতে। নদিয়ার কৃষ্ণনগরেও সভা করেছেন মোদি। কৃষ্ণনগর উত্তরে মুকুল রায় জিতলেও বিজেপি হেরেছে দক্ষিণ আসনটি। এই জেলার কল্যাণীতেও সভা করেছেন মোদি। নদিয়ায় খুব ভালো ফলের আশা করা বিজেপি শেষ পর্যন্ত ১৭টির মধ্যে পেয়েছে আটটি। মোদি সভা করেছেন পশ্চিম বর্ধমানে আসানসোলের কাছে তালিত ও উত্তর ২৪ পরগনার বারাসতে। আসানসোল দক্ষিণে বিজেপি জিতলেও হেরেছে উত্তরে। আর বারাসতেও ভরাডুবি হয়েছে বিজেপির।

Share:



আরও পড়ুন

নাইজেরিয়ায় নৌকাডুবে ৩০ জনের মৃত্যু

Shamim Reza

শ্মশান থেকে করোনায় মৃতদের পোশাক চুরি করে বিক্রি

Shamim Reza

বাংলাদেশসহ ৪ দেশের ওপর আমিরাতের নিষেধাজ্ঞা

Shamim Reza

আস্থা ভোটে হেরে ক্ষমতা হারালেন নেপালের প্রধানমন্ত্রী

Shamim Reza

ইসরায়েলের বিমান হামলায় হামাসের কমান্ডার নিহত

Shamim Reza

৭ জুন পর্যন্ত মালয়েশিয়ায় কঠোর লকডাউন ঘোষণা

mdhmajor