বিভাগীয় সংবাদ ময়মনসিংহ

ময়মনসিংহে সেই মহিষকে গণধোলাই

জুমবাংলা ডেস্ক : ময়মনসিংহে জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টিকারী সেই মহিষকে গণধোলাই দিয়ে দুর্বল করে আটক করতে সক্ষম হয়েছে এলাকাবাসী। রবিবার রাত ১টার দিকে জেলার ফুলবাড়ীয়ার বালিয়ান ইউনিয়নের বৈদ্যবাড়ী গ্রামের হুগলিপাড়া বিলপাড় থেকে আটক করে স্থানীয় ফকিরবাড়ীতে আটকে রাখা হয়।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আশরাফুজ্জামান মহিষটির তত্ত্বাবধানে আছেন।

চেয়ারম্যান অভিযোগ করে বলেন, মহিষটি গভীর রাতে আটক হলেও এখন পর্যন্ত খোঁজ নেয়নি প্রাণী সম্পদের লোকজন। মহিষটিকে বরাক লাগানো হয়েছে। আটকের আগে পর্যন্ত মহিষটির গুঁতোয় শামছুল হক খলিফা নামে একজনের মৃ’ত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন কমপক্ষে ৩০ জন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, রবিবার দুপুরে ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়া পৌর সদরের হাটে একটি মহিষ তোলেন শফিকুল ও চানু কসাই। বিকাল ৪টার দিকে হঠাৎ করে মহিষটি ছুট দেয়। আক্রমণ চালায় মানুষ ও বাজারের গরুর ওপর। শিং দিয়ে গুঁতো দিয়ে শামছুল হক খলিফা নামে গরু ব্যবসায়ীকে মেরে ফেলে। মুহূর্তেই বাজার একেবারে ফাঁকা হয়ে যায়। গরুগুলো ছুটোছুটি করে চলে যায়।

বাজারের বেশ কয়জনকে আহত করে কুশমাইল গ্রামের দিকে ছুটে যায় মহিষটি। রাত ৮টার দিকে আবারও মহিষটি বাজারের ভেতরে চলে এলে মানুষের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দেয়। সড়কের ওপর দোকানগুলো বন্ধ করে ফেলা হয়।

কিছুক্ষণ পরপর মহিষটি অবস্থান পরিবর্তন করায় ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ মহিষটি আটকের চেষ্টা চালায়। একপর্যায়ে রাত ১টার দিকে বৈদ্যবাড়ির কালনিনা বিলের হুগলির খালে স্থানীয়দের সহযোগিতায় মহিষটি আটক করা হয়।

মহিষটি সুস্থ হলে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের পরামর্শে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান, ফুলবাড়ীয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ফিরোজ তালুকদার।



জুমবাংলানিউজ/এসআই




আপনি আরও যা পড়তে পারেন


সর্বশেষ সংবাদ