in

যে কারণে ‘ইত্যাদি’ ছাড়া কোথাও অভিনয় করেন না ‘নাতি’

ইত্যাদি নাতিদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ইত্যাদি। বিনোদনমূলক এই অনুষ্ঠানে বেশ কয়েকজন নিয়মিত শিল্পী আছেন। যাদের একজন শওকত আলী তালুকদার। গড়নে ছোটখাটো মানুষটি সবার কাছে ‘নাতি’ নামেই পরিচিত।

ইত্যাদির নিয়মিত শিল্পীরা নাটক-সিনেমায় কাজ করেন। এই ক্ষেত্রে ব্যতিক্রম জনপ্রিয় অভিনেতা শওকত। তিনি ইত্যাদি ছাড়া এখন আর কোথাও কাজ করেন না।

নাতি চরিত্রে ঈর্ষণীয় জনপ্রিয়তা পাওয়া শওকত নাটক সিনেমায় অভিনয়ের বহু প্রস্তাব পেয়েছেন। প্রথম দিকে কিছু কাজ করলেও পরে আর সাড়া দেননি। দর্শকদের প্রশ্ন কেন শওকত অন্যত্র কাজ করেন না?

শওকতের সাফ জবাব, যত দিন বাঁচবেন, ততদিন নাতি পরিচয় শুধু ‘ইত্যাদি’তেই অভিনয় করবেন।

শুরুর দিকে খ্যাতিমান অভিনেতা অমল বোসের সঙ্গে নাতি চরিত্রে কাজ করেছেন শওকত। এখন নানা বদলালেও নাতি একজনই আছেন।

টানা ২৮ বছর ধরে ‘ইত্যাদি’র নানা-নাতি নাট্যাংশে দেখা যাচ্ছে শওকতকে। প্রথম পর্ব প্রচারের পর থেকেই দর্শকেরা সাদরে গ্রহণ করে নিয়েছেন তাকে। তারপর থেকে নির্মাতারাও তাকে নিয়ে কাজ শুরু করেন। তার অভিনীত কাজগুলো তেমন সাড়া পায়নি। এরপর সিদ্ধান্ত নেন ‘ইত্যাদি’ ছাড়া অন্য কোনো অনুষ্ঠানে কাজ করবেন না।

শওকত আলী তালুকদার বলেন, ‘ইত্যাদি’ অনুষ্ঠানে অভিনয় করে আমি প্রশংসা পেয়েছি। দর্শক আমাকে নাতি হিসেবেই চেনে। নাতি চরিত্রের প্রতি আমারও মায়া তৈরি হয়ে গেছে। অন্য কোনো চরিত্রে জনপ্রিয়তা পাব, সেটা আমি আশা করি না। যত দিন ইত্যাদি চলবে, ভেবেছি তত দিনই এর সঙ্গে থাকব। আমার মনে হয়, একটি ভালো কাজই যথেষ্ট।

অভিনয়ের জন্য এখনও তাকে ডাকেন নির্মাতারা। তিনি বিনয়ের সঙ্গে তাদের প্রস্তাব ফিরিয়ে দেন।

শৈশবে বিভিন্ন রকম অঙ্গভঙ্গি করে পরিবার এবং বন্ধুদের হাসাতেন নিপু। অন্যরা আনন্দ পাচ্ছেন দেখে ভালো লাগত তার। এখান থেকেই অভিনয়ের প্রতি আকৃষ্ট হন তিনি।

১৯৮৯ সাল থেকে রাজধানীর উত্তরার আজমপুর জায়নাল মার্কেট এলাকায় স্টেজে অভিনয় করতেন। মানুষ তার অভিনয় দেখে বাহবা দিতেন। তাকে নিয়ে আগ্রহ তৈরি হয় টেলিভিশনের মানুষদের। ১৯৯২ ঢাকা এবং ঢাকার পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন জায়গায় নিয়মিত স্টেজ শো শুরু করেন।

তিনি নন্দিত নির্মাতা হানিফ সংকেতের চোখে পড়েন। ১৯৯৩ সালে রাজারবাগ পুলিশ লাইনসে স্টেজ শো করতে গিয়েই হানিফ সংকেতের সঙ্গে তার পরিচয়।

এ বিষয়ে শওকত বলেন, ‘অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন হানিফ ভাই। তিনি আমার পারফরম্যান্স পছন্দ করেন। সেই সময়ই তিনি আমাকে ইত্যাদিতে অভিনয়ের প্রস্তাব দেন। তখন থেকেই হানিফ ভাইয়ের সঙ্গে আছি।’

ছোটখাটো গড়নের শওকতের বয়স ৪০ ছাড়িয়েছে। ১৯৮১ সালে ঢাকায় জন্ম নেওয়া এই অভিনেতার গ্রামের বাড়ি জামালপুর। শওকত এখনও অবিবাহিত। সৌজন্যে: যুগান্তর