যে কারণে ডেটিং অ্যাপ চালু করল ইরান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ইরান একটি ইসলামি ডেটিং অ্যাপ চালু করেছে। সোমবার ইরানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনের এক সংবাদে বলা হয়েছে, তরুণদের বিয়েতে উৎসাহিত করতে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

‘হামদাম’ (সঙ্গী) নামের এই অ্যাপটির সাহায্যে বিয়ে করতে ইচ্ছুক তরুণ-তরুণীরা পছন্দের সঙ্গী খুঁজে পেতে এবং বাছাই করতে পারবেন।

কাতারভিত্তিক আল জাজিরার খবরে বলা হয়েছে, ইরানের মানুষ দেরিতে বিয়ে করছে। এ কারণে দেশটিতে জন্মহার কমছে। এ নিয়ে উদ্বিগ্ন কর্তৃপক্ষ তরুণ-তরুণীরা যাতে দ্রুত বিয়ে করতে পারে তার জন্য এই ডেটিং অ্যাপ চালু করেছে।

ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনিসহ দেশটির বিভিন্ন কর্তৃপক্ষ বেশ কয়েকবার দেরি করা বিয়ে করা এবং জন্মহার হ্রাসের জন্য সতর্ক করেছেন।

অ্যাপটির নির্মাতা প্রতিষ্ঠান তেবইয়ান কালচারাল ইন্সটিটিউট জানিয়েছে, অ্যাপটিতে ‘কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার’ (আর্টিফিসিয়াল ইন্টিলিজেন্স) ব্যবহার করা হয়েছে।

হামদামের ওয়েবসাইটের তথ্য অনুসারে, সত্যিকার অবিবাহিত যারা স্থায়ীভাবে বিয়ে ও একমাত্র জীবনসঙ্গীর সন্ধান করছে তাদের সহায়তার জন্যই অ্যাপটিতে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ব্যবহার হয়েছে।

ইরানে ডেটিং অ্যাপ বেশ জনপ্রিয়। তবে দেশটির সাইবারস্পেস পুলিশের প্রধান কর্নেল আলী মোহাম্মদ রাজাবি বলেন, ইরানে এই ধরনের এটিই একমাত্র অ্যাপ, বাকি অ্যাপগুলো অবৈধভাবে চলছে।

ইরানের ইসলামী প্রচারণা সংস্থা তেবইয়ান কালচারাল ইন্সটিটিউটের প্রধান কোমেইল খোজাস্তে অ্যাপটির উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বলেন, বহির্শক্তির হুমকির মুখে ইরানের পারিবারিক মূল্যবোধ। ইরানের ওপর শত্রুরা তাদের নিজস্ব ধারণা চাপিয়ে দিতে চায়। এই হুমকি উত্তরণ করে সুস্থ পরিবার গঠনে অ্যাপটি সহায়তা করবে।

অ্যাপটি ব্যবহার করতে প্রথমে ব্যবহারকারীকে নিজের পরিচয় নিশ্চিত করতে হবে। এরপর ব্যবহারের আগে ব্যবহারকারীকে মনস্তাত্বিক নিরীক্ষায় অংশ নিতে হবে।

কোনো যুগলের মধ্যে যখন মিল (সম্পর্ক ম্যাচ) হবে তখন অ্যাপের এক সার্ভিস কনসালটেন্ট দুই জনের পরিবারকে পরিচয় করিয়ে দেবে। বিয়ের পর ওই দম্পতিকে চার বছর সঙ্গ দেবেন ওই কনসালটেন্ট কর্মকর্তা।


জুমবাংলানিউজ/এসআর