in ,

লোহার বদলে বাঁশ ও কাঠ, ধসে পড়ল নির্মাণাধীন সড়ক ভবনের ছাদ

জুমবাংলা ডেস্ক : রংপুর সড়ক বিভাগের নির্মাণাধীন একটি দোতলা ভবনের ছাদ ধসে পড়েছে। বুধবার (২৮ জুলাই) বিকালে হঠাৎ শার্টারিং খসে ধসে পড়ে ছাদের পুরোটা। তবে ৫/৬ জন শ্রমিক সামান্য আহত হলেও প্রাণহানির কোনো ঘটনা ঘটেনি।

বিকাল পৌনে ৫টার দিকে খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে কেউ নিচে চাপা পড়েছে কি না তা নিশ্চিত হয়।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের রংপুরস্থ সহকারী পরিচালক শামসুজ্জোহা জানান, দুর্বল শার্টারিংয়ের কারণে সদ্য ঢালাই করা ছাদের বড় অংশ ধসে পড়ে। ভবনটি সড়ক বিভাগের জোনাল অফিস হিসেবে নির্মাণ করা হচ্ছিল বলে জানান তিনি।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, শার্টারিংয়ে লোহার পাইপের বদলে বাঁশ ও কাঠের ব্যবহার করা হয়েছে। এ ব্যাপারে ঠিকাদার প্রকৌশলী শাহাদাত হোসেন বলেন, সড়ক ভবনের ক্যাম্পাসের ভেতর এই ঘটনা লজ্জাজনক।

অনেকের ধারণা যে ভাবে রড ও রড বাঁধার কাজ হবার কথা তাও ঠিকভাবে না হওয়ায় বিমসহ ছাদ খুলে পড়েছে। সরকারের একটি প্রকৌশল সংস্থার ভবন এভাবে ধসে পড়ার ঘটনায় সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে।

এলাকাবসি জানিয়েছে, ঘটনার সময় ৫-৬ জন শ্রমিক সেখানে কাজ করছিল। ভাগ্যক্রমে তারা দ্রুত সরে যাওয়ায় প্রাণে বেঁচে গেলেও ছুটোছুটি করতে গিয়ে সবাই সামান্য আহত হয়েছে। এ ব্যাপারে কথা বলতে সড়ক ভবনে যোগাযোগ করে তাৎক্ষণিকভাবে কোনো প্রকৌশলীকে পাওয়া যায়নি।

তবে পরে রংপুর সড়ক ও জনপথ বিভাগের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী এ কিউ এম ইকরাম উল্লাহর সঙ্গে টেলিফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি দুর্বল শার্টারিংয়ের কথা অস্বীকার করেন।

তিনি বলেন, বৃষ্টির কারণে শার্টারিং সরে গিয়ে ভবনটির একাংশ ধসে পড়েছে। পরে তা ঠিক করা হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি। এ ঘটনায় দুই তিনজন শ্রমিক সামান্য আহত হয়েছে এবং তাদের প্রাথমিকভাবে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে বলে জানান অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী।

ফেরদৌস লিমন নামে একজন বলেন, আমার মতে পুরোটাই ধ্বংস করে আবার নতুনভাবে করা উচিত। কারণ একই মিস্ত্রী, একই লেবাররা, একই মসলা ও একই প্রক্রিয়ায় পুরোটা তৈরি করছে।

অনলাইনে খুব সহজে টাকা ইনকাম করার উপায়