Views: 112

রেসিপি লাইফস্টাইল

শবে বরাতে সহজেই বানান কয়েক পদের বরফি-হালুয়া

লাইফস্টাইল ডেস্ক : অনেকেই শবে বরাতের দিন হালুয়া বরফি তৈরি করে সবাইকে খাওয়াতে পছন্দ করেন। সেক্ষেত্রে চাইলে বাড়িতেই তৈরি করতে পারেন নানা স্বাদের হালুয়া। শবে বরাতে আবার প্রায় প্রতিটি পরিবারেই হালুয়ার সঙ্গে তৈরি করা হয় রুটিও। অনেক ধরনের হালুয়া তৈরি হয়, তবে সেই আগের দিনে মা-দাদিদের হাতে তৈরি হালুয়া-রুটির স্বাদই সবার সেরা। চলুন শিখে নেয়া যাক কয়েক পদের হালুয়া-বরফি।

বুটের ডালের হালুয়া:

উপকরণ : বুটের ডাল ১ কাপ, ঘি আধা কাপ, চিনি ১ কাপ, দুধ দেড় কাপ, কাজু বাদাম কয়েকটা, এলাচ ২টা, দারুচিনি ১টা।

প্রস্তুত প্রণালি : ডাল ভালোভাবে ধুয়ে নিন। চার পাঁচ ঘণ্টা পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। এরপর ডাল ভালোভাবে সিদ্ধ করুন। চুলা নিভিয়ে ডালের সঙ্গে দুধ মেশান। এবার মিশ্রণটি মিহি করে বেটে বা ব্লেন্ড করে আলাদা পাত্রে রাখুন।

ননস্টিক প্যানে বাকি ঘি ঢেলে দিন। এতে বাটা বা ব্লেন্ড করে রাখা ডাল-দুধের মিশ্রণটা ঢেলে দিন। ধীরে ধীরে চিনি, লবঙ্গ, দারুচিনি, তেজপাতা যোগ করুন। বার বার নাড়তে থাকুন। ঘান হলে চুলা বন্ধ করুন। হালুয়া ঢালার আগে গরম মসলা তুলে ফেলুন। ঠান্ডা হলে ফ্রিজে রেখে দিন। পরে বের করে বিভিন্ন আকৃতি অনুযায়ী হালুয়ার নকশা করতে পারেন।

সুজির হালুয়া:

উপকরণ : আধা কাপ সুজি, ২ চামচ ঘি বা বাটার, ২৫০ গ্রাম দুধ, আধা কাপ চিনি, স্লাইজ করা পেস্তাবাদাম কয়েক টুকরা, কাজুবাদাম কুচি করে কাটা, সামান্য দারুচিনির গুড়া

প্রস্তুত প্রণালি : প্রথমে একটি প্যানে দুধ জ্বাল দিন। ফুটে উঠলে জ্বাল কমিয়ে আস্তে আস্তে নাড়তে থাকুন। দুধ ঘন হয়ে এলে চুলা বন্ধ করুন। এবার একটি ননস্টিক প্যানে ঘি দিন। এরপর এতে সুজিটা ঢেলে দিন। হালকা আঁচে রেখে সুজিটা নাড়াচাড়া করুন। এবার এতে দুধট ঢেলে দিন। অনরবত নাড়তে থাকুন। সুজি ঘন হয়ে এলে এতে ধীরে ধীরে চিনি ও দারুচিনির গুঁড়া যোগ করুন।

নারকেলের বরফি:

যা যা লাগবে
নারিকেল ২টি প্রথমে কুরিয়ে তারপর বেটে নিতে হবে। গুঁড়া দুধ ২০০ গ্রাম, এলাচ গুঁড়া ১ চা চামচ, চিনা বাদামের গুঁড়া ১কাপ, চিনি আধা কেজি, ঘি ১০০ গ্রাম।

যেভাবে তৈরি করতে হবে:

প্রথমে একটি পাত্রে ঘি গরম করে এলাচের গুঁড়া, নারিকেল বাটা, চিনি, বাদামের গুঁড়া এবং গুঁড়া দুধ দিয়ে একসঙ্গে দিয়ে মাঝারি আঁচে নাড়তে থাকতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে যেন নিচে পুড়ে না যায়। নাড়তে নাড়তে যখন মিশ্রণটা আঠালো হলে নামিয়ে নিন।

আগেই একটি ট্রেতে ঘি মেখে রাখুন। এবার নারকেলের হালুয়া ঢেলে সমান করে ওপরে বাদামের কুচি ছিটিয়ে চারকোণা করে কেটে নিন। ঠান্ডা করে পরিবেশন কারন।

এবার তৈরি করুন নরম রুটি:

উপকরণ: চালের গুঁড়া আধা কেজি। অ্যালুমিনিয়ামের গোল মুখের গ্লাস ১টি। পানি প্রয়োজনমতো। লবণ স্বাদমতো।

পদ্ধতি: একটি হাঁড়িতে আধা লিটার থেকে একটু কম পানি ফুটতে দিন। লবণ দিয়ে তাতে চালের গুঁড়া ঢেলে সিদ্ধ করুন। আটার রুটি জন্য আটা সেদ্ধ করতে যতটুকু সময় লাগে চালের রুটি জন্য একটু বেশি সময় দিয়ে রাখতে হবে চুলায়।

এবার ময়ান তৈরি করে ছোট ছোট রুটি বানিয়ে গ্লাসের মুখ দিয়ে কেটে কেটে নিন। বেলন দিয়ে রুটি গোল করে বানিয়ে তাওয়ায় সেঁকে নিন। সেঁকা রুটিগুলো কাপড় দিয়ে পেঁচিয়ে ঢাকনায়ালা পাত্রে রেখে দিন। দীর্ঘ সময় রুটি থাকবে তুলতুলে নরম। খেতেও মজা।

দুধ থেকে ছানা কেটে কিংবা দুধ জ্বাল দিয়ে মাওয়া করে বা খোয়া ক্ষির করে বরফি বানানো বিশাল ঝক্কির কাজ। এত ব্যস্ত সময়ে সেটি করা সম্ভবও হয়ে ওঠে না। অন্যদিকে শবে বরাতে একটু আলাদা কিছু না করলেই নয়। সবার চাহিদাই থাকে বাড়িতে ভালো কিছু হবে। তাই চাপ কমাতে চটজলদি দুধের বরফি বানানোর রেসিপিটি জেনে নিন।

দুধের বরফি :

উপকরণ:

২ কাপ পাউডার মিল্ক

১ কাপ চিনি

বাদাম গুঁড়ো- আধ কাপ

ময়দা- ১ টেবিল চামচ

১ চা চামচ গোলাপ জল

১ চা চামচ ঘি

১/২ চা চামচ এলাচ গুঁড়ো

তরল দুধ – আধ কাপ

সাজানোর জন্য বাদাম

প্রণালী : প্রথমে কড়াইয়ে ঘি দিয়ে তাতে বাদাম গুঁড়া ও ময়দা ভালো করে ভেজে নিন। ভাজা ঘ্রাণ বের হলে তাতে গুঁড়া দুধ দিয়ে ভেজে নিন। এর মধ্যে তরল দুধসহ অন্য সব উপকরণ ছেড়ে দিন। একটু সময় নিয়ে নাড়তে হবে। চিনি গলে জমে গেলে নামিয়ে থালায় ছড়িয়ে দিতে হবে। ফ্রিজে রেখে ঠান্ডা করে বরফি আকারে কেটে নিন।


যাদের বাচ্চা আছে, এই এক গেইমে আপনার বাচ্চার লেখাপড়া শুরু এবং শেষ হবে খারাপ গেইমের প্রতি আসক্তিও।ডাউনলোডকরুন : https://play.google.com/store/apps/details?id=com.zoombox.kidschool



আরও পড়ুন

কম্পিউটারের ‘ব্লু লাইটে’ ত্বকের ক্ষতির হাত থেকে বাঁচতে মেনে চলুন এই বিষয়গুলো

Mohammad Al Amin

মশা দূর করতে বেছে নিন ঘরোয়া উপায়

Mohammad Al Amin

যেসব ডায়াবেটিস রোগীদের রোজা রাখা উচিত নয়

Mohammad Al Amin

মাথা ব্যথা কমাবে এই ৪ চা

Mohammad Al Amin

চুল পড়া বন্ধ করবে যেসব খাবার

Saiful Islam

রোজা যখন রাখেন তখন কী ঘটে আপনার শরীরে, জানালেন চিকিৎসকরা

mdhmajor