in ,

শুক্র-শনিবার চাকরির পরীক্ষা নেবে না পিএসসি

জুমবাংলা ডেস্ক: মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে অনেক নিয়োগ পরীক্ষা আটকে গেছে। সেজন্য গত ১৭ সেপ্টেম্বর ২১টি পরীক্ষা হয়েছে। এছাড়া আগামী ৮ অক্টোবর ১৪টি নিয়োগ পরীক্ষা হচ্ছে। এমন অবস্থায় নানা সমস্যা পড়ছেন চাকরি প্রত্যাশীরা।

পিএসসির চেয়ারম্যান সোহরাব হোসাইন সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, নিয়োগজটের এই সময়ে অন্য প্রতিষ্ঠানের নিয়োগ পরীক্ষায় যাতে প্রার্থীরা সঠিকভাবে অংশ নিতে পারেন, সে জন্য আপাতত নতুন কোনো নিয়োগ পরীক্ষা শুক্র ও শনিবার নেবে না বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)।

সোহরাব হোসাইন সংবাদমাধ্যমকে আরও বলেন, আমরা দেখেছি, এক দিনে ১৪টি নিয়োগ পরীক্ষা হচ্ছে। এটা আগে কখনো দেখা যায়নি। করোনার বিশেষ পরিস্থিতির কারণে এ নিয়োগজট হয়েছে, এটা সাময়িক। কয়েক সপ্তাহ গেলে এই জট কমে আসবে বলে মনে করেন তিনি। এ জন্য আপাতত নতুন কোনো নিয়োগ পরীক্ষা শুক্র ও শনিবার নেওয়া হবে না।

আগামী শুক্রবার বিসিএস নন-ক্যাডার ক্র্যাফট ইনস্ট্রাক্টর পদের পরীক্ষাও পিছিয়ে দিয়েছে পিএসসি। এ পরীক্ষা আগামী ১৪ অক্টোবর বেলা ৩টা থেকে বিকেল ৪টায় অনুষ্ঠিত হবে।

সোহরাব হোসাইন আরও বলেন, শুক্র-শনিবার পরীক্ষা না নেওয়ার চিন্তা আমাদের রয়েছে, তবে কতটুকু পারব জানি না। নতুন বিজ্ঞপ্তি গুলোয় আপাতত এই দুই দিন পরীক্ষা না রাখার চেষ্টা করব।

আগামী শুক্রবার তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি, বিসিএসআইআর, সিভিল এভিয়েশন অথরিটি, বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড, ন্যাশনাল সিকিউরিটি ইন্টেলিজেন্স, বাংলাদেশ গ্যাস ফিল্ডস কোম্পানি লিমিটেড, সাধারণ বীমা করপোরেশন, পিএসসির নন-ক্যাডার, জালালাবাদ গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন সিস্টেম লিমিটেড, কৃষি উন্নয়ন করপোরেশন, ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট, পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অব বাংলাদেশ লিমিটেড ও বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডে বিভিন্ন পদে চাকরির পরীক্ষার সূচি প্রকাশিত হয়েছে।

এর মধ্যে কোনো কোনো পরীক্ষা শুক্রবার একই সময়ে পড়েছে। তিতাস গ্যাসের সহকারী ব্যবস্থাপক (জেনারেল) পদের নিয়োগ পরীক্ষা শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে বেলা ১১টায়। একই সময়ে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের সহকারী পরিচালক (প্রশাসন) পদের পরীক্ষাও।