সাবেক আইজিপি ও সচিব এ ওয়াই বি আই সিদ্দিকী মারা গেছেন

জুমবাংলা ডেস্ক: বাংলাদেশ পুলিশের সাবেক মহাপরিদর্শক (আইজিপি‌) ও সচিব এ. ওয়াই. বি. আই. সিদ্দিকী (৭৬) ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

শনিবার দিবাগত রাত ১ টার পরে তিনি রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, এক পুত্র ও এক কন্যাসহ বহু আত্মীয়-স্বজন এবং গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

জনাব সিদ্দিকী ১৯৪৫ সালে চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড উপজেলার এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ১৯৭০ সালে এএসপি হিসেবে পুলিশ বাহিনীতে যোগদান করেন। তিনি ২৭ সেপ্টেম্বর ১৯৯৮ থেকে ৭ জুন ২০০০ সাল পর্যন্ত সততা, দক্ষতা ও সুনামের সাথে আইজিপি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

মরহুমের প্রথম জানাযা আজ (১৮ জুলাই) সকাল সাড়ে দশটায় রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সের এসআই শিরু মিয়া মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। জানাযায় ইন্সপেক্টর জেনারেল অব পুলিশ, বাংলাদেশ ড. বেনজীর আহমেদ বিপিএম (বার), ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাগণ, সাবেক পুলিশ কর্মকর্তাগণ, পুলিশ সদস্যগণ এবং মরহুমের আত্মীয়-স্বজন উপস্থিত ছিলেন।

জানাযা শেষে একটি সুসজ্জিত পুলিশ দল মরহুমকে অফিসিয়াল ফিউনারেল প্রদান করেন।

পরে বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক ড. বেনজীর আহমেদ মরহুমের কফিনে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। ডিএমপি কমিশনার মোহাঃ শফিকুল ইসলাম এবং বাংলাদেশ পুলিশ সার্ভিস এসোসিয়েশন নেতৃবৃন্দও পুষ্পস্তবক অর্পণ করে মরহুমের প্রতি শ্রদ্ধা জানান।

জানাযা শেষে বাংলাদেশ পুলিশের ব্যাবস্থাপনায় মরদেহ মরহুমের গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে পাঠানো হয়েছে। সেখানে আজ (১৮ জুলাই) বাদ আছর দক্ষিণ রহমতনগর মসজিদ প্রাঙ্গনে দ্বিতীয় জানাযা শেষে মরহুমকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হবে।

সাবেক আইজিপি ও সচিব এ. ওয়াই. বি. আই. সিদ্দিকীর মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদ।

আজ এক শোকবার্তায় আইজিপি বলেন, এ. ওয়াই. বি. আই. সিদ্দিকী একজন সৎ ও দক্ষ পুলিশ কর্মকর্তা ছিলেন। আইজিপি হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে তিনি দেশ ও জনগণের কল্যাণ এবং বাংলাদেশ পুলিশের উন্নয়নে অসামান্য অবদান রেখে গেছেন। তাঁঁর কা‌জের মাধ্য‌মে তি‌নি ‌চির স্মরণীয় হয়ে থাকবেন।

আইজিপি মরহুমের রুহের মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।


জুমবাংলানিউজ/এইচএম