in

সিলিকন ভ্যালিতে শেষ হলো ইউএস-বাংলাদেশ টেক ইনভেস্টমেন্ট সামিট

জুমবাংলা ডেস্ক:  বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) এর আয়োজনে ‘রাইজ অফ বেঙ্গল টাইগারঃ পটেনশিয়ালস অফ ট্রেড এন্ড ইনভেস্টমেন্ট ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক রোডশো শেষ হয়েছে।

এ উপলক্ষে গত মঙ্গলবার (৩ আগস্ট) বাংলাদেশ সময় সকালে আমেরিকার সিলিকন ভ্যালিতে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে স্টার্ট আপ বাংলাদেশের পক্ষ থেকে প্রযুক্তি খাতে বিশেষ বিনিয়োগের সুযোগ নিয়ে আলোচনা করা হয়।

যুক্তরাষ্ট্রে রোডশোর শেষ দিনে স্থানীয় এবং আন্তর্জাতিক প্রতিনিধিরা ‘ইউএস-বাংলাদেশ টেক ইনভেস্টমেন্ট সামিট’ এ অংশ নেন। আলোচকবৃন্দ প্রযুক্তি খাতে বিশেষ বিনিয়োগের পাশাপাশি এশিয়ার সম্ভাবনাময় বিনিয়োগযোগ্য ক্ষেত্র ও বাংলাদেশে নতুন উদ্যোক্তাদের সম্ভাবনা ও সুযোগের বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে তুলে ধরেন।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান ফজলুর রহমান, ক্যালিফোর্নিয়া সান্তা ক্লারা শহরের মেয়র মিসেস লিসা এম গিলমোর, বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড একচেঞ্জ কমিশন এর চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবায়াত-উল-ইসলাম, অর্থ বিভাগের সিনিয়র সচিব আবদুর রউফ তালুকদার, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব তপন কান্তি ঘোষ, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের সচিব ফাতিমা ইয়াসমিন, বাংলাদেশ ইনভেস্টমেন্ট ডেভলপমেন্ট অথরিটি (বিডা)-এর নির্বাহী চেয়ারম্যান মো. সিরাজুল ইসলাম, বাংলাদেশ এক্সপোর্ট প্রসেসিং জোন অথরিটি (বেপজা) এর নির্বাহী চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল মো. নজরুল ইসলাম, স্টার্টআপ বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) টিনা জাবীন ও সংশ্লিষ্ট নেতৃবৃন্দ।

অনুষ্ঠানে সালমান ফজলুর রহমান-এমপি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বাংলাদেশের শক্তিশালী গণতান্ত্রিক ও আর্থ সামাজিক সম্পর্কের পাশাপাশি সেখানকার স্থানীয় ব্যবসায়ীদের সম্ভাবনাময় ক্ষেত্র হিসেবে বাংলাদেশে স্টার্টআপে অধিক বিনিয়োগের আহবান জানান।

আবদুর রউফ তালুকদার বলেন, আমরা অবকাঠামোগত উন্নয়ন ও মানব সম্পদ খাতে বিনিয়োগ করেছি। এটি মূলত বেসরকারি খাতের বিনিয়োগকে উৎসাহিত করবে।

সিরাজুল ইসলাম বলেন, দেশে সব ধরণের বিনিয়োগের সহায়তা রয়েছে। আইটিভিত্তিক স্টার্টআপগুলিকে বিভিন্নভাবে উৎসাহিত করা হচ্ছে।

মূল উপস্থাপনায় টিনা জাবীন বলেন, বাংলাদেশ গত এক দশকে তথ্য প্রযুক্তি, ব্যবসাসহ বিভিন্ন খাতে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি দেখিয়েছে। বাংলাদেশ একটি আউটসোর্সিং এর সম্ভাবনা হিসাবে নিজেকে উন্নত করেছে। বিশেষত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বাজারের জন্য একটি শক্তিশালী বাণিজ্যিক সম্পর্ক বিদ্যমান রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, স্বপ্নদ্রষ্টা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকার আশাব্যঞ্জক প্রবৃদ্ধি অব্যাহত রেখেছে। তাঁর (শেখ হাসিনা) অণুপ্রেরণাই আজ বাংলাদেশের ২০২১-২০৪১ রুপকল্প। তিনি ডিজিটাল বাংলাদেশ এগিয়ে নেয়ার ক্ষেত্রে প্রধান মন্ত্রীর আইসিটি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় ও আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমদ পলকের প্রতি বিশেষ কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।

তিনি বলেন, ইতিমধ্যে বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক বাজারে বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ দেখিয়েছে। বাংলাদেশ দ্রুতই এশিয়ার কার্যকর বিনিয়োগক্ষেত্র হতে প্রস্তুত।

টিনা জাবীন বাংলাদেশের স্টার্টআপের সাথে মার্কিন বিনিয়োগের অংশীদারিত্ব ও উৎসাহিত করার কৌশল নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন। তিনি বলেন, স্টার্টআপ বাংলাদেশ লিমিটেড স্টার্টআপ ইকোসিস্টেম তৈরির মাধ্যমে নতুন উদ্ভাবনা ও কৌশলের নেতৃত্ব দিচ্ছে।

সান্তা ক্লারা শহরের মেয়র লিসা গিলমোর তাঁর বক্তব্যে ব্যবসা খাতের উন্নয়নে শক্তিশালী অংশীদারিত্ব গড়ে তোলার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন।

অনলাইনে খুব সহজে টাকা ইনকাম করার উপায়