সেই ডি মারিয়াই নায়ক

স্পোর্টস ডেস্ক : ২০১৪ সাল, মারাকানা স্টেডিয়াম। ফুটবল বিশ্বকাপের ফাইনালে জার্মানির মুখোমুখি আর্জেন্টিনা। সেবার ডাগআউটে বসে ১১৩ মিনিটে মারিও গোটশের গোলে দলের হৃদয়বিদারক হার দেখেন অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া। ২০১৯ কোপা আমেরিকায় ব্রাজিলের বিপক্ষে হেরে বাদ পড়ে আর্জেন্টিনা। সেমিফাইনালের সেই ম্যাচটিতেও ছিলেন না ডি মারিয়া। এবার ফাইনালে সেলেসাওদের মুখোমুখি হয়ে নায়ক বনে গেলেন আর্জেন্টাইন নাম্বার ইলেভেন। দীর্ঘ ২৮ বছর পর শিরোপায় চুমু আঁকার সৌভাগ্য এনে দিলেন আলবিসেলেস্তেদের।

প্যারিস সেইন্ট জার্মেইয়ের (পিএসজি) জার্সিতে ছন্দে থাকলেও জাতীয় দলের জায়গাটা পাকা করতে পারছিলেন না ডি মারিয়া। ক’মাস আগে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচ দিয়ে সাদা-আকাশী জার্সিতে ফেরেন তিনি।

কোপা আমেরিকার ম্যাচগুলোতেও শুরুর একাদশে জায়গা হচ্ছিলো না ডি মারিয়ার। সবশেষ সেমিফাইনালে কলম্বিয়ার বিপক্ষে গোল মিস করে বসেন। তবে শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে ডি মারিয়ার উপর ভরসা রাখেন লিওনেল স্কালোনি।

শুরুর একাদশে জায়গা পেয়ে আর্জেন্টাইন কোচের ভরসার মর্যাদা দিলেন মারিয়া। একমাত্র গোলে দলকে এনে দিলেন অধরা সাফল্য। ম্যাচের ২২ মিনিটের মাথায় রদ্রিগো দি পলের দুর্দান্ত থ্রু বলে ব্রাজিলের অফসাইডের ফাঁদ ভেঙে ঢুকে পড়েন ডি মারিয়া। বুদ্ধিদীপ্ত চিপ শটে সামনে থাকা গোলরক্ষক এদেরসনকে পরাস্ত কওে দলকে এগিয়ে দেন এ তারকা।

আর্জেন্টিনা জাতীয় দলের হয়ে ডি মারিয়ার এটি ২১তম গোল। কোপা আমেরিয়াক চতুর্থ এবং ব্রাজিলের বিপক্ষে প্রথম গোল।


জুমবাংলানিউজ/এসআর