Views: 810

আন্তর্জাতিক

সৌদিতে ১ লাখ ২০ হাজার বছর আগের পায়ের ছাপ

আলাথার হ্রদে মানুষের পায়ের ছাপ। ছবি: এএফপি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : সৌদি আরবে ১ লাখ ২০ হাজার বছর আগের মানুষের পায়ের ছাপ খুঁজে পাওয়ার দাবি করেছেন গবেষকেরা। গবেষকদের দাবি, উত্তর সৌদি আরবের নেফুদ মরুভূমিতে প্রাচীন পূর্বপুরুষদের ওই পায়ের ছাপের খোঁজ তাদের চলাচলের নতুন পথ সম্পর্কে নতুন তথ্য দিতে পারে।

যেখানে পায়ের ছাপ মিলেছে, সেখানে একটি অগভীর হ্রদে হোমো সেপিয়েন্সের একটি ছোট্ট দল পানি পান করার জন্য থামত। এএফপির প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

সৌদি আরবে ১ লাখ ২০ হাজার বছর আগের মানুষের পায়ের ছাপ খুঁজে পাওয়ার দাবি করেছেন গবেষকেরা। গবেষকদের দাবি, উত্তর সৌদি আরবের নেফুদ মরুভূমিতে প্রাচীন পূর্বপুরুষদের ওই পায়ের ছাপের খোঁজ তাদের চলাচলের নতুন পথ সম্পর্কে নতুন তথ্য দিতে পারে।

যেখানে পায়ের ছাপ মিলেছে, সেখানে একটি অগভীর হ্রদে হোমো সেপিয়েন্সের একটি ছোট্ট দল পানি পান করার জন্য থামত। এএফপির প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

সেখানে এখনকার প্রজাতির উট, মহিষ বা হাতির তুলনায় বড় বড় প্রাণীর চারণ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। যেসব মানুষের পায়ের ছাপ মিলেছে, তারা বড় বড় স্তন্যপায়ী প্রাণী শিকার করত। তবে তারা এক জায়গায় বেশি দিন থাকতো না। তাদের দীর্ঘ যাত্রাপথের নির্দেশক হিসেবে পানির এসব গর্ত ব্যবহার করতো।


গবেষকেরা ওই দৃশ্য বিস্তারিতভাবে পুনর্গঠন করে দেখেছেন। বুধবার (১৬ সেপ্টেম্বর) ‘সায়েন্স অ্যাডভান্সেস’ সাময়িকীতে এই গবেষণাবিষয়ক নিবন্ধ প্রকাশিত হয়। এতে বলা হয়েছে, আফ্রিকা মহাদেশ থেকে বিভিন্ন প্রান্তে পূর্বপুরুষদের ছড়িয়ে পড়ার পথের নতুন তথ্য পাওয়া যাবে।

গবেষণা নিবন্ধের সহলেখক রিচার্ড ক্লার্ক-উইলসন ব্যাখ্যা দিয়ে বলেন, ‘যে মরুভূমি এখন আরব উপদ্বীপে বিস্তৃত, তা অতীতের একটি নির্দিষ্ট সময়ে স্থায়ী মিষ্টি জলের হ্রদ এবং নদীসহ বিস্তৃত তৃণভূমিতে রূপ নিয়েছিল।’

পদচিহ্নগুলো জীবাশ্ম প্রমাণের একটি অনন্য রূপ, যা সঠিক সময়ের তথ্য দিতে পারে। পায়ের ছাপ যে সুনির্দিষ্ট তথ্য দিতে পারে, তা অন্য কোনো রেকর্ডে পাওয়া যায় না।

আবিষ্কার করা শত শত ছাপের মধ্যে সাতটি হোমিনিন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়, যার মধ্যে চারটির ক্ষেত্রে অনুরূপ, একে অপরের থেকে দূরত্ব এবং আকারের পার্থক্য দেখা যায়। এ থেকে বোঝা যায়, দুই বা তিনজন একত্রে ভ্রমণ করেছিল।

গবেষকেরা বলেন, তারা যে পায়ের ছাপ পেয়েছেন, তা অপেক্ষাকৃত আধুনিক মানুষের। কারণ নিয়ানডারথলদের চেয়ে এর পার্থক্য রয়েছে। ওই সময়ে মধ্যপ্রাচ্য অঞ্চলে নিয়ানডারথলদের অস্তিত্ব পাওয়া যায় না।

গবেষক স্টুয়ার্ট বলেন, ‘আমরা জানি, ওই হ্রদে মানুষের পাশাপাশি প্রাণীরা আসত। অঞ্চলটিতে কোনো পাথরের সরঞ্জাম মেলেনি। অর্থাৎ, পশুদের কাছ থেকে দূরত্ব বজায় রাখত তারা।

মানুষের পায়ের ছাপের সঙ্গে ২৩৩ জীবাশ্ম উদ্ধার করেছেন গবেষকেরা। এ থেকে বোঝা যায়, এখানকার তৃণভোজীরা মাংসাশী প্রাণীর শিকার হয়েছিল।

গবেষক স্টুয়ার্ট বলেন, আগে ধারণা করা হতো ,আদি যুগে মানুষ দক্ষিণ গ্রিস এবং লেভান্ট হয়ে ইউরেশিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে এবং তারা উপকূল কাজে লাগিয়েছিল। কিন্তু নতুন গবেষণায় দেখা গেছে, অভ্যন্তরীণ পথ, হ্রদ এবং নদী অনুসরণ করে তাদের ছড়িয়ে পড়ার দিকটিও গুরুত্বপূর্ণ।

আফ্রিকা ও ইউরোশিয়ার মধ্যে চলাচলকারী মানুষের জন্য উত্তর আরবের খোলা তৃণভূমি, পানির উৎস এবং হাতির মতো প্রাণীর উপস্থিতি আকর্ষণীয় স্থান হয়ে উঠেছিল।


যাদের বাচ্চা আছে, এই এক গেইমে আপনার বাচ্চার লেখাপড়া শুরু এবং শেষ হবে খারাপ গেইমের প্রতি আসক্তিও।ডাউনলোডকরুন : https://play.google.com/store/apps/details?id=com.zoombox.kidschool


আরও পড়ুন

রিজার্ভ চুরি : বাংলাদেশ ব্যাংকের মামলার নোটিশ পেয়েছে সেই ব্লুমবেরি রিসোর্ট

Sabina Sami

ছয় মাসের শিশুর বিশ্বরেকর্ড! (ভিডিও)

Shamim Reza

লন্ডনে থানায় আসামির গুলিতে পুলিশ নিহত

Shamim Reza

শিনজিয়াংয়ের কয়েক হাজার মসজিদ ধ্বংস করেছে চীন

Shamim Reza

দাবানলের জন্য দায়ী বিশ্ব উষ্ণায়ন : গবেষণা

Shamim Reza

কিশোরের সঙ্গে যৌনতা, চাকরি হারিয়ে জেলে ক্যালিফোর্নিয়ার নারী পুলিশ কর্মকর্তা

Shamim Reza