in ,

স্ত্রীকে পানিতে ডুবিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যার অভিযোগ

জুমবাংলা ডেস্ক : জয়পুরহাটের কালাইয়ে হাটতে যাওয়ার নাম করে ডেকে নিয়ে বাড়ির বাহিরে একটি পুকুরের পানিতে ডুবিয়ে শ্বাসরোধ করে স্ত্রী বিলকিছ বানুকে (৫৩) হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে ঘাতক স্বামীর বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় পালিয়ে যাওয়ার সময় ঘাতক স্বামী ছাদেক আলীকে (৬২) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ছাদেক আলী তার স্ত্রীকে পানিতে ডুবিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে বলে স্বীকার করেছে। এ বিষয় নিশ্চিত করেছেন কালাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেলিম মালিক।

সোমবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার উদয়পুর ইউনিয়নের ধুনট গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার সকালে নিহতের ভাই মঞ্জুরুল ইসলাম বাদী হয়ে বিলকিছ বানুর স্বামীকে আসামী করে কালাই থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মঙ্গলবার সকালে জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেছে।

মামলার বিবরণ, পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, দীর্ঘদিন ধরে সাংসারিক কলহ লেগেই ছিল স্বামী-স্ত্রীর মাঝে। মারপিটের মত ঘটনা অনেকবারই ঘটেছে। এরই জেরে সোমবার রাতে স্বামী ছাদেক আলী তার স্ত্রীকে হাটার কথা বলে দুজন মিলে একসাথে বাড়ীর বাহিরে আসেন। বাড়ীর পাশে একটি পুকুরের পাড় হয়ে তারা হাটাহাটি করছিলেন। গ্রামের অনেক লোকজন তাদের একসাথে যাওয়া দেখেছে।

হাটাহাটির এক পর্যায়ে ছাদেক আলী তার স্ত্রী বিলকিছ বানুকে পুকুরের পানিতে চুবিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে ওই স্থান থেকে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পুকুর থেকে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে।

এদিকে হত্যার পর থেকে পালিয়ে থাকে ছাদেক আলী। মঙ্গলবার ভোরে ঢাকার উদ্যের্শে পালিয়ে যাওয়ার সময় ছাদেক আলী উপজেলার নোহার এলাকা থেকে আটক করে পুলিশ।

স্থানীয় উদয়পুর ইউ’পি চেয়ারম্যান ওয়াজেদ আলী বলেন, নিহতের পরিবারের সদস্যদের মাধ্যমে জানতে পেরেছি তাকে হত্যা করা হয়েছে। আমি জনপ্রতিনিধি হিসেবে ঘাতক স্বামী ছাদেক আলীর কঠিন শাস্তির দাবি করছি।

নিহতে বড় ছেলে বিল্পব হোসেন বলেন, অনেক আগে থেকেই বাবা আমার মাকে নির্যাতন করে আসছে। রাতে মা এবং বাবা মিলে বাড়ির বাহিরে হাটতে যায়। এসময় বাবা আমার মাকে বাড়ির পাশের একটি পুকুরের পানিতে ডুবিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। আমার মা হত্যার সঠিক বিচার চাই।

মামলার বাদী নিহতে ভাই মঞ্জুরুল আলম বলেন, দীর্ঘদিন ধরে ওদের বিচার সালিশ করতে করতে আমরা অতিষ্ট। অবশেষে আমার বোনকে ছাদেক হত্যা করেই ছাড়ল। আমি ছাদেককে আসামী করে মামলা করেছি। বোন হত্যার বিচার চাই।

কালাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেলিম মালিক বলেন, হত্যার ঘটনায় নিহতের ভাই বাদী হয়ে মামলা করেছে। আসামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আসামী ছাদেক আলী তার স্ত্রীকে পানিতে ডুবিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা ঘটনা স্বীকার করেছে। ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মঙ্গলবার সকালে জয়পুরহাট আধুনিক হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।