১৫ বছরের অপেক্ষায় পাওয়া সন্তানকে বুকে জড়িয়েই মারা গেলেন মা

জুমবাংলা ডেস্ক : বিয়ের ঠিক ১৫ বছর ঘর আলো করে সন্তান আসে রশিদ খান ও রুবি আক্তার দম্পতির। এর আগে তাদের প্রচেষ্টার কমতি ছিল না। সন্তানের জন্য তারা সিলেটের হজরত শাহজালালের (র.) মাজারে মানত করেছিলেন। কিন্তু সেই মানত পূরণ করতে গিয়েই লাশ হলেন তারা।

গত শনিবার রাত ১২ টার দিকে ঢাকা সিলেট মহাসড়কের পাঁচদোনা সাকোরা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, সিলেটের হজরত শাহজালালের (র.) মাজার থেকে বাড়ি ফেরার পথে দুর্ঘটনায় মারা যান মা রুবি আক্তার (৪০)। মায়ের বুকেই খুঁজে পাওয়া যায় ১৫ বছরের অপেক্ষায় পাওয়া মেয়ে রাহিমার (৩) মরদেহ।

প্রত্যক্ষদর্শী এক ব্যক্তি আহতদের বরাত দিয়ে জানান, পরিবারের সদস্যরা সিলেট মাজার জিয়ারত শেষে বাড়ি ফিরছিলেন। তাদের বহনকারী মাইক্রোবাসটি শনিবার রাত ১২টার দিকে পাঁচদোনা-ঘোড়াশাল সড়কের ভাটপাড়া সাকুরার মোড় এলাকায় পৌঁছলে ট্রাকের সঙ্গে মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে মাইক্রোবাসে থাকা একই পরিবারের নারী ও শিশুসহ ৫ জন নিহত হয়েছেন।

এ ঘটনায় নিহত যাত্রীরা হলেন- রুবি আক্তার (৪০), তার মেয়ে রাহিমা (৩), মুক্তি আক্তার (৩০) ও তার ছেলে সাদেকুল (৮) ও রোকেয়া বেগম (৫২)।

আহতরা হলেন, সাইমা, ইসরাত জাহান, সামসুন্নাহার, শারমিন, রাজিয়া, আ. রশিদ ও কাজীমুদ্দীন। তাদেরকে নরসিংদী সদর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ঢাকা মেডিকেলে পাঠানো হয়েছে। হতাহতদের বাড়ি ঢাকার সাভার উপজেলার আশুলিয়া থানার জিরাব এলাকায়।

দুর্ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ওই ট্রাক উদ্ধার করে। তবে ট্রাক চালক পালিয়ে গেছে।

নরসিংদী সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক মো. আসাদুজ্জামান জানান, এই দুর্ঘটনায় ঘটনাস্থলেই দুইজন নিহত হন। এছাড়া নিহত এক শিশুকে মৃত অবস্থায় সদর হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। অন্যান্য আহতদের উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। ঢাকায় নেয়ার পথে আরো দুই নারীর মৃত্যু হয়েছে।

নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইনামুল হক সাগর জানান, নিহতদের মধ্যে তিনজনের মরদেহ নরসিংদী সদর হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে। ট্রাকটি উদ্ধার করা হয়েছে তবে এর চালক পালিয়ে গেছে। আইনী প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।


জুমবাংলানিউজ/এসআই