৮ বছর পর তুরস্ক ও মিশর বৈঠক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ২০১৩ সালের পর অনুষ্ঠিত তুরস্ক ও মিসরের মধ্যে প্রথম আনুষ্ঠানিক কূটনীতিক বৈঠকে উভয়পক্ষের মাঝে ‘অকপট’ আলোচনা হয়েছে। আঞ্চলিক প্রতিদ্বন্দ্বী এই দুই পক্ষের মধ্যে আট বছর পরে অনুষ্ঠিত বৈঠক শেষে গতকাল বৃহস্পতিবার এক যৌথ বিবৃতিতে এই কথা জানানো হয়। খবর আল জাজিরা’র।

এর আগে গত বুধবার তুরস্ক ও মিসরের কূটনীতিক প্রতিনিধি দলের মধ্যে কায়রোতে দুই দিনের এই বৈঠক শুরু হয়। তুর্কি পররাষ্ট্র উপমন্ত্রী সাদাত ওনাল ও মিসরীয় পররাষ্ট্র উপমন্ত্রী হামদি লোজা বৈঠকে নিজ নিজ দেশের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন।

বিবৃতিতে বলা হয়, ‘তারা দ্বিপক্ষীয় বিষয়ে আলোচনার সঙ্গে আঞ্চলিক বিশেষ করে লিবিয়া, সিরিয়া, ইরাক ও পূর্ব ভূমধ্যসাগরে শান্তি ও নিরাপত্তা অর্জনের প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে আলোচনা করেছেন।’

২০১৩ সালে সামরিক অভ্যুত্থানের পর মিসরে গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত প্রথম প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসিকে ক্ষমতাচ্যুত করার পর থেকে তুরস্কের সঙ্গে দেশটির সম্পর্কের টানাপোড়েন শুরু হয়। মোহাম্মদ মুরসির মুসলিম ব্রাদারহুড দলটিকে মিসরে সন্ত্রাসের অভিযোগে নিষিদ্ধ করা হয়।

সম্প্রতি সাবেক সেনা প্রধান ও বর্তমান প্রেসিডেন্ট আবদুল ফাত্তাহ আল-সিসির অধীন মিসরের সঙ্গে স্বাভাবিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার সংকেতে তুর্কি কর্মকর্তারা সংকেত দিয়েছেন, যা দেশটির পূর্বের অবস্থানের বিপরীত। তুর্কি প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান ১২ মার্চ দুই দেশের মধ্যে ‘গোয়েন্দা, কূটনীতিক ও অর্থনৈতিক’ বিষয়ে যোগাযোগের কথা জানিয়ে বলেন, তিনি আশা করেন দুই দেশের মধ্যে ‘শক্তিশালী’ সম্পর্ক প্রতিষ্ঠিত হবে।


জুমবাংলানিউজ/একেএ