একজন ওমান প্রবাসী বাংলাদেশী বংশদূত জনপ্রিয় তরুন উদ্যোক্তা, ডিজিটাল মার্কেটার, মিউজিসিয়ান আহমেদ রাসেল এর গল্প

জুমবাংলা ডেস্ক : ওমান প্রবাসী বাংলাদেশী বংশদূত আহমেদ রাসেল একাধারে একজন জনপ্রিয় তরুন উদ্যোক্তা, ডিজিটাল মার্কেটার এবং মিউজিসিয়ান । সম্প্রতি তিনি “How To Become A Successful Entrepreneur ” নামের একটি নতুন বই প্রকাশ করে যাচ্ছেন। বইটি পাওয়া যাবে অ্যামাজন, গুগল বুকস এর মতো আন্তর্জাতিক প্ল্যাটফরমে।

ডিজিটাল মার্কেটার এবং মিউজিসিয়ান আহমেদ রাসেল এমন একজন সফল ব্যক্তি যার অসাধারণ সফলতার গল্প শুনলে আপনি অনুপ্রাণিত হতে বাধ্য। একই সাথে জানতে পারবেন সফল হওয়ার কিছু কার্যকরী উপায়।

যারা সফল মানুষদের খোঁজে না, তারা জানবেও না যে পৃথিবী কত সুন্দর ও কেমন সুখী মানুষ ছিল। বর্তমানে সাফল্য যেন একটা সোনার হরিণ, কিন্তু চাইলেই কী আর পাওয়া যায়? হ্যাঁ পাওয়া যায় কারণ ব্যর্থতার শেষ আছে তবে সাফল্যের শেষ নেই। যারা কঠিন পথকে পারি দিয়ে সফল হয়েছে, তাদের জীবন খুবই আনন্দ ও সুখময়। সফলতার মূলমন্ত্র আমাদের শিক্ষা দেয়, সফলতা আসবেই, সফলরা হাসবেই। তাহলে আপনি কেন পারবেন না?

সফল হওয়ার জন্য যথেষ্ট পরিশ্রম করতে হয়, অনেক ধৈর্য নিয়ে কাজে লেগে থাকতে হয়, এইসব আমরা সবাই জানি। কিন্তু বর্তমানে শুধু কঠোর পরিশ্রম করে গেলেই সফলতা খুব সহজেই অর্জন করা যাবে না। তাহলে কিভাবে?

সেটাই একজন সফল ডিজিটাল মার্কেটার আহমেদ রাসেল থেকে জানবো: অধ্যবসায় করতেই হবে যেকোনো কাজে, তবে সেটা শুধু কঠোরভাবে নয় স্মার্টভাবে করতে হবে। যারা সফল হয়েছেন ও হচ্ছেন তারা সবাই দূরদর্শিতা ও বিচক্ষণতার সাথে স্মার্টভাবে পরিশ্রম করে গেছেন। তারা একসাথে কয়েকটা কাজে দক্ষ থাকলেও অনেক বিষয় নিয়ে রিসার্চ করেছেন ও জেনেছেন। এইজন্যই বলে থাকি, নিয়মিত সফল মানুষদের সফলতার গল্প পড়ুন। নতুন কিছু জেনে নিজেকে নতুনভাবে আবিস্কার করুন। একটা কথা সর্বদা মনে রাখবেন, অন্যের চেয়ে আপনি যত বেশি জানবেন, যত বেশি কাজ করতে পারবেন তত সাফল্যের পথে এগিয়ে থাকবেন।

নিজের ভুল থেকে নয় অন্যের ভুল থেকে শিক্ষা নেওয়াই হচ্ছে বুদ্ধিমানের কাজ। এইজন্যই বেশি বেশি সফল মানুষদের সফলতার গল্প পড়া উচিত। তাহলে আপনি সহজেই হতাশা ও ব্যর্থতা থেকে ফিরে আসতে পারবেন এবং বুদ্ধিমানের সাথে কাজ করতে পারবেন।

“সাধারণ মানুষ যতক্ষণ ভালো লাগে ততক্ষণ কাজ করে আর অসাধারণ সফল মানুষেরা ভালো না লাগলেও যতক্ষণ না কাজ শেষ হয়, ততক্ষণ কাজ বন্ধ করে না।” (বিশ্বখ্যাত সেলফ ডেভেলপমেন্ট কোচ ও লেখক-ব্রায়ান ট্রেসি)। চলুন অসাধারণ সফল মানুষের গল্পটা ওনার থেকে শুনে আসি।

বর্তমানে আহমেদ রাসেল কি কি নিয়ে কাজ করছে?
আসলে আমার ক্যারিয়ার অনলাইন ও অফলাইনে ২ জায়গায় ব্যানেস রেখে কাজ করতেছি। যেমন অফলাইনে আমি মরুভূমির দেশ উমানে একটি কন্সট্রাকশন কোম্পানি ( Abdullah Bin salim bin Khalfan Al Risi Trad) পরিচালনা করতেছি। পাশাপাশি অনলাইনে ডিজিটাল মার্কেটিং নিয়ে কাজ করতেছি। আর মিউজিক সখের বসে করা হয়। যদিও আমি সকল মিউজিক্যাল প্লাটফর্ম থেকে একজন ভেরিফাইড মিউজিসিয়ান হিসেবেই পরিচিত লাভ করেছি।

ডিজিটাল মার্কেটিং কিভাবে আসা?
আমি মূলত ডিজিটাল মার্কেটিং এর বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ ধাপ নিয়ে ছোট বেলা থেকেই টুকিটাকি কাজ করছি। ডিজিটাল মার্কেটিং স্ট্রাটেজি, কনটেন্ট প্ল্যানিং অ্যান্ড মার্কেটিং, সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন, গুগোল অ্যাডস, ফেসবুক অ্যাডস ফানেল, সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং, ভিডিও মার্কেটিং, ইমেইল ক্যাম্পেইন, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং, লীড জেনারেশন, কনভার্সন ফানেল, ন্যাটিভ অ্যাডস সহ আরও কিছু গুরুত্বপূর্ণ মার্কেটিং স্ট্রেটেজি নিয়ে নিয়ে ক্লাইন্ট সার্ভিস দিচ্ছি। নিজের ব্যক্তিগত কিছু সাইট আছে, সেগুলোতেও নিয়মিত সময় দিচ্ছি।

ডিজিটাল মার্কেটিং নিয়ে প্লান কি?
অনেক আগে থেকেই নিজের ডিজিটাল মার্কেটিং এজেন্সি দেওয়ার ইচ্ছে ছিল। বর্তমানে সেই লক্ষে কাজও করতেছি। আর তাই Digital mediahub bd নামের একটি এজেন্সি খুলি, আর Digital mediahub bd টিম মেম্বার দের নিয়ে কিছু দেশি ও ইন্টারন্যাশনাল ক্লাইন্ট সার্ভিস দিচ্ছি। সামনে আরো পরিসরে কাজ করে Digital mediahub bd নামের মিডিয়া এজেন্সি কে এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই।

আপনি কতটা সফল বলে মনে করেন?
সফলতা আসলে একটা আপেক্ষিক বিষয়। আমি বিশ্বাস করি, আমার বেষ্ট আউটপুট আমি এখনও দিতে পারিনি, কিন্তু ইনশাআল্লাহ্ আমি আমার সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি। হালাল ভাবে রুজির তালাশ করাটাই মুখ্য আমার কাছে। বুদ্ধিমানের মত পরিশ্রম করে যাচ্ছি, প্রতিনিয়ত বিজনেস ডেভেলপমেন্ট ও ডিজিটাল মার্কেটিং নিয়ে নিয়ে রিসার্চ করছি। এটাই আমার পথচলা এবং এতে আমি আলহামদুলিল্লাহ্ সন্তুষ্ট।


জুমবাংলানিউজ/এসআর