আন্তর্জাতিক

এবার আন্তর্জাতিক শিশু শান্তি পুরস্কারে ভূষিত হলো গ্রেটা থানবার্গ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : আন্তর্জাতিক শিশু শান্তি পুরস্কারে ভূষিত হয়েছে জলবায়ু আন্দোলনে বিশ্বজুড়ে সাড়াজাগানো র ক্ষুদে নেত্রী গ্রেটা থানবার্গ। পরিবেশ আন্দোলনে বিশেষ ভূমিকা রাখায় বুধবার (২০ নভেম্বর) তাকে এই পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়। এছাড়া ক্যামেরুনের শান্তিকর্মী দিভিনা মালুমকেও এই পুরস্কার দেয় ডাচ সংস্থা কিডসরাইট।

বিশ্বে চলমান জলবায়ু আন্দোলনের ক্ষেত্রে মাত্র ১৬ বছর বয়সেই আলোচিত নেতায় পরিণত হয়েছেন গ্রেটা থানবার্গ। ২০১৮ সালের আগস্টে প্রতি শুক্রবার সুইডেনের পার্লামেন্টের সামনে একটি প্ল্যাকার্ড নিয়ে অবস্থান নিয়ে আলোচনায় আসেন তিনি। ওই প্ল্যাকার্ডে লেখা ছিল, জলবায়ুর জন্য স্কুলে ধর্মঘট। এই কিশোর জলবায়ু আন্দোলনকর্মীর ডাকে ‘ফ্রাইডেজ ফর ফিউচার’ কর্মসূচিতে সাড়া দিয়েছেন বিশ্বের লাখ লাখ মানুষ। রীতিমত একক প্রচেষ্টায় জলবায়ু আন্দোলনকে এক অন্য মাত্রায় নিয়ে জান গ্রেটা। বিশ্ব বিবেকের প্রতি দেয়া তার সেই জ্বালাময়ি ভাষণে টনক নড়ে ওঠে উন্নত বিশ্বের দেশগুলোর এবং বড় বড় জলবায়ু বিষয়ক গবেষণা সংস্থাগুলোর।

নিজের সেই ভাষণে বিশ্বের ক্ষমতাসীন ও পারমাণবিক কার্যক্রম পরিচালনাকারী শিল্পোন্নত দেশগুলোর উদ্দেশ্যে গ্রেটা বলেছিলেন, ‘তোমাদের এত বড় দুঃসাহস, তোমরা আমার আগামী জীবনের তরে, আসন্ন নতুন প্রজন্মের তরে নিবেদিত একটি ভবিষ্যতকে বিনষ্ট করছো। তোমাদের এই অধিকার কে দিয়েছে, তোমরা আমার সুন্দরভাবে বেঁচে থাকার অধিকার কেড়ে নিচ্ছ…’।

থানবার্গ নিজে উপস্থিত থেকে এই শান্তি পুরস্কার নিতে পারেননি। কারণ জাতিসংঘের এক সম্মেলনে যোগ আটলান্টিক পাড়ি দিচ্ছেন তিনি। এর আগে সুইডেন থেকে চিলির উদ্দেশে যাত্রা করেছিলেন গ্রেটা। তবে নৌকা, ট্রেন আর ইলেকট্রিক গাড়িতে করে প্রায় অর্ধেক পথ পাড়ি দেওয়ার পর তিনি জানতে পারেন যে অনুষ্ঠানের ভেন্যু সরিয়ে নেয়া হয়েছে। আর তাতে বিব্রতিতে পড়েন তিনি। কেননা, কার্বন নিঃসরণ করায় যথাসম্ভব বিমান বা জ্বালানি চালিত যান এড়িয়ে চলেন তরুণ এই জলবায়ু কর্মী। কার্বন নিঃসরণকারী প্রযুক্তি যতটা সম্ভব পাশ কাটিয়ে চলেন গ্রেটা। ব্যক্তিগত পর্যায় থেকে মূলত এভাবেই তার পরিবেশ সচেতনতা চর্চার শুরু।



জুমবাংলানিউজ/পিএম




আপনি আরও যা পড়তে পারেন