in ,

জেনে নিন, এই শীতে স্বাস্থ্য ভালো রাখার জরুরী বিষয়গুলো

স্বাস্থ্য ভালো রাখার
ফাইল ছবি

লাইফস্টাইল ডেস্ক : এই শীতে এখন সবচেয়ে জরুরী বিষয় নিজের স্বাস্থ্য ভালো রাখা।  স্বাস্থ্য সচেতনতার অভাবে প্রতিনিয়ত মানুষ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। 

অনেকে ভাবেন খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তন আনা জরুরী, কেউ কেউ জিমে শরীরচর্চার ওপর নির্ভর করতে চান, আবার অনেকে দৈনন্দিন জীবনের স্বাভাবিকতায় কিছু পরিবর্তন করতে বলেন। কোনো পদ্ধতিকেই একেবারে বাদ দিয়ে দেয়া যায়না। তবে শুধু খাদ্যাভ্যাসে পরিবর্তন, কিংবা শরীরচর্চাই একমাত্র পদ্ধতি না। আপনাকে সবকিছুর সুষম বণ্টন নিশ্চিত করতে হবে।

আমরা অবশ্য স্বাস্থ্য ভালো রাখার জন্যে অভ্যাসকেই গুরুত্ব দিবো। অভ্যাস আপনাকে অভ্যস্ততার ভেতর রাখে বলে সহজে ক্লান্ত হবেন না। আবার অভ্যাসের বশে আপনি কাজগুলোও করবেন।

তাই স্বাস্থ্য ভালো রাখার বারটি পদ্ধতি অনুসরণ করে আপনি নিজের স্বাস্থ্য সহজেই সুস্থ রাখতে পারবেন। 

ধীরে খাবার গ্রহণ করুন 

তাড়াহুড়ো করে খাওয়ার সময় আমরা কতটুকু খাচ্ছি তা বোঝা যায়না
খাবার গ্রহণের সময় মোটেও তাড়াহুড়ো করা যাবেনা।

নিজেকে সামাজিক করে তুলুন

চেষ্টা করুন আপনার আশেপাশের মানুষের সাথে যোগাযোগ রাখার। 
না, আমরা বলছিনা আপনি প্রচুর মানুষের সাথে মেলামেশা শুরু করে দিন। বরং চেষ্টা করুন আপনার আশেপাশের মানুষের সাথে যোগাযোগ রাখার।

ফলের জুস না, ফল খান

বাড়িতে ফলের জুস করলেও তাতে চিনি বা স্বাদবর্ধক কিছু মেশাবেন না। 

মাঝেমধ্যে ট্যুর দিন

এতে বেশ ছুটোছুটির আমেজ থাকে বলে আপনার হৃদরোগের আশঙ্কাও যায় কমে
বন্ধু কিংবা পরিবারকে সবসময়ই সঙ্গ দিতে হয়। কিন্তু যখনই সবকিছু বিরক্তিকর হয়ে ওঠে তখন একটা ট্যুর দেয়া উচিত।

চর্বিযুক্ত খাবার ও ফাস্টফুড ত্যাগ করুন

ফাস্টফুড আর ভাজাপোড়া দেহে যেমন অতিরিক্ত মেদ জমায় তেমনই হৃদরোগের ঝুঁকিও বৃদ্ধি করে
আজকাল ঘরের বাইরে বের হলেই ভাজাপোড়া আর চর্বিযুক্ত খাবারের হিড়িক। আর মুখরোচক বলে সবাই এসবই খেতে ভালবাসেন। এই ফাস্টফুড আর ভাজাপোড়া দেহে যেমন অতিরিক্ত মেদ জমায় তেমনই হৃদরোগের ঝুঁকিও বৃদ্ধি করে। তাই যতই প্রিয় হোক এসকল চর্বিযুক্ত খাবার প্রিয় তালিকা থেকে সরিয়ে ফেলাই উত্তম।

স্ট্রেস কমান

পরিবারের সাথে অবসরে কাটান সুন্দর সময়। এতেও আপনার স্ট্রেস কমে যাবে

মিষ্টি বা চিনি খাওয়া কমান

চিনি বা মিষ্টি আপনার দেহের জন্যে ক্ষতিকর
মিষ্টি বা চিনি স্বাস্থ্যের জন্যে ক্ষতিকর। বিশেষত সাদা চিনি একেবারেই বাজে। সাদা চিনির বদলে লাল চিনি খাওয়া ভালো। তবে চারদিকের সকল খাবারে সাদা চিনির দৌরাত্ম দেখার মতো। চিনি বা মিষ্টি আপনার দেহের জন্যে ক্ষতিকর। ক্যান্সার, মেদ বৃদ্ধি, হৃদরোগ সহ বিভিন্ন বাজে রোগের কারণ মিষ্টি বা চিনি।

জীবনে বৈচিত্র্য আনুন

ঘুরতে বের হন, খেলাধুলো করুন বা নিজেকে ব্যস্ত রাখুন
নিজের কাজে বা দৈনন্দিন জীবনে বৈচিত্র্য আনুন। ঘুরতে বের হন, খেলাধুলো করুন বা নিজেকে ব্যস্ত রাখুন। নিজের ঘর গোছানো, ঘরের বিভিন্ন কাজে অংশগ্রহণের মাধ্যমেও নিজেকে ব্যস্ত রাখা সম্ভব।

খাদ্যতালিকায় সবজি যোগ করুন

ঋতুভেদে সবজি তালিকায় পরিবর্তন আনা সম্ভব
খাদ্যতালিকায় শর্করা কমিয়ে সবজি বাড়ান। প্রয়োজনে দিনে তিন চারবার করে খাবার গ্রহণ করুন। এতে আপনার পেট ভরা লাগবে৷ সবজিতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ও এন্টি-অক্সিডেন্ট থাকে। ঋতুভেদে সবজি তালিকায় পরিবর্তন আনা সম্ভব। তাছাড়া সবজি দিয়ে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন খাবার রান্না করা সম্ভব। তাই খাদ্যতালিকায় সবজি বাড়ান।

নিয়ম করে খান

নিয়ম করে খেলে আপনার শরীরও অভ্যস্ত হয়ে উঠবে। ফলে দেহের বিপাক প্রক্রিয়ায় কোনো সমস্যা হবেনা
প্রতিদিন বিভিন্ন সময়ে খাবার গ্রহণ না করে নিয়ম করে খাবার খান।

নিয়ম করে ঘুমান

রোজ অন্তত ৮ ঘণ্টা এবং খুব বেশি সমস্যা হলে অন্তত ৬ ঘণ্টার ঘুম নিশ্চিত করুন

মোবাইল ফোন কম ব্যবহার করুন

মোবাইল ফোন ব্যবহারে সতর্ক হোন। কিন্তু ফোনে আসক্তি অনেক সময় আমাদের বিভিন্ন ভুল করতে বাধ্য করে।

স্মার্টফোন ব্যবহার করে ঘরে বসেই ইনকাম করুন